মেইন ম্যেনু

নাছিমা বেগমের ‘হিজাব’ নিয়ে তসলিমা নাসরিনের গাত্রদাহ

জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন সাবেক সিনিয়র সচিব নাছিমা বেগম। রাষ্ট্রপতির অনুমোদনক্রমে রোববার আইন মন্ত্রণালয় (লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগ) থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

এদিকে সোমবার মানবাধিকার কমিশনের নতুন চেয়ারম্যানকে নিয়ে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন বিতর্কিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন। ফেসবুক স্ট্যাটাসে নাছিমা বেগমের হিজাব নিয়ে প্রশ্ন তুলে তাকে একপ্রকারে মৌলবাদিদের সঙ্গে তুলনা করেছেন তসলিমা নাসরিন।

ফেসবুকে দেয়া তার স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

বাংলাদেশে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন হিজাবি নাছিমা বেগম। হিজাবি মহিলা নিশ্চয়ই কট্টর মুসলমান। নিশ্চয়ই কোরানের সেই সব আয়াতে উনি বিশ্বাস করেন, যে সব আয়াতে বিধর্মী এবং ইসলামে অবিশ্বাসীদের পেছন থেকে বাঁ হাত ডান পা আর ডান হাত বাঁ পা তলোয়ার দিয়ে কেটে ফেলে হত্যা করার উপদেশ দেওয়া হয়েছে। উনি কি আল্লাহ রসুলে যাদের বিশ্বাস নেই, তাদের বাক স্বাধীনতায় বিশ্বাস করেন? তারা যদি নিন্দে করে মানবাধিকার লঙ্ঘন করা ইসলামের আইনগুলোর, তারা যদি সমালোচনা করে নারীর ওপর ইসলাম যেভাবে পুরুষকে আধিপত্য করার অধিকার দিয়েছে, তার? তারপর মোল্লা মৌলবাদিরা যদি ফতোয়া দেয় অবিশ্বাসীদের বিরুদ্ধে, তাদের মাথার দাম ঘোষণা করে? নাছিমা বেগম কার পক্ষ নেবেন? বাক স্বাধীনতার না ফতোয়ার? কার পক্ষ নেবেন? সমানাধিকারের নাকি প্রভু-দাসির সম্পর্কের? বিজ্ঞানের নাকি কোরানের? তাঁর হিজাবই বলে দেয় তিনি কার পক্ষ নেবেন। তাহলে ধারণা করা যায়, বাংলাদেশের জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান সব রকম বিশ্বাসের এবং জেন্ডারের মানুষের মানবাধিকারে বিশ্বাস করবেন না। তা না করলে মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান পদে নিশ্চয়ই তিনি অযোগ্য এক লোক।



মন্তব্য চালু নেই