শিরোনাম:

নাশকতা এড়াতে সিলেটের পথে পথে পুলিশের তল্লাশী

সিলেট বিভাগ জুড়ে চলছে অবরোধ সকল ধরণের যান চলাল বন্ধ থাকলেও চলে মোটরসাইকেল সহ তিন চাকার যানবাহন। ওই দিকে সিলেট আলিয়া মাদ্রাসার মাঠে বিএনপির সমাবেশ চলছে। গোটা সিলেট শহর লোকে লোকারণ্য। সিলেটের আলীয়া মাদ্রাসা মাঠে বিএপির মহা সমাবেশকে কেন্দ্র করে পুলিশের ব্যাপক তল্লাশী অব্যাহত রয়েছে। সিলেট-তামাবিল মহা সড়কসহ সিলেটের শহরের সাথে যোগাযোগ রক্ষাকারী সবকটি সংযোগ সড়কে বসানো হয়েছে পুালিশ চেক পোস্ট।

শনিবার (১৯ নভেম্বর) সকাল ৯টা থেকে দুপর ১২টা পর্যন্ত সিলেট-তামাবিল মহা সড়কসহ সবকটি সড়কের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে পুলিশের ঢহল ছিলো চোখে পড়ার মত। গোয়াইনঘাট থেকে সিলেট অভিমুখে সারীঘাট পয়েন্ট, সালুটিকর পয়েন্ট, হাকুর বাজার পয়েন্ট, ফতেহপুর পয়েন্ট।

তাছাড়া সিলেট তামাবিল-মহা সড়কের জৈন্তাপুর উপজেলাধীন দরবস্ত-কানাইঘাট পয়েন্টে চোখে পড়ে জৈন্তাপুর এবং গোয়াইনঘাট থানা পুলিশের যৌথ ঢহল। এ সময় মোটর সাইকেল, পিকআপ, অটোরিক্সা এবং সিএনজির যাত্রীদের দেহ তল্লাশীসহ অবৈধ মালামাল চেক করে পুলিশ।
গোয়াইনঘাট থানার অফিস ইনচার্জ কে.এম. নজরুলের নেতৃত্বে পুলিশের এই বিশাল চেক পোস্টে ডিবি পুলিশ সদস্যদেরও দেখা যায়।

বিএনপির মহা সমাবেশগামী নেতাকর্মীদের যাতায়াতে বিরম্বনা এবং প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করার জন্যই মহা সড়কসহ সবকটি সড়কে পুলিশ চেক পোস্ট বসিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন বিএনপির নেতা কর্মীরা।
জৈন্তাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ গোলাম দস্তগির আহমেদ,ওসি ডিবি (নর্থ) রেফায়েত উল্লাহ চৌধুরীসহ বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্যদের উপস্থিতি চোখে পড়ে।

দুপুর ১২টায় দরবস্ত কানাইঘাট পয়েন্টে কথা হলে গোয়াইনঘাট থানা অফিসার ইনচার্জ কেএম নজরুল জানান,বিএনপির মহাসমাবেশে কেউ যাতে অবৈধ অস্ত্র কিংবা আমদানি নিষিদ্ধ এমনকি রাষ্ট্রবিরোধী কিছু বহন না করতে পারে সে লক্ষে পুলিশের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। রাষ্ট্র বিরোধী কিংবা নাশকতামূলক ঘটনা এড়াতে পুলিশ তৎপর রয়েছে।
এ দিকে সিলেটে শহরতরীয় শ্রিরামপুর বাইপাস, পরাইচক পয়েন্ট, তেমুখী পয়েন্ট, তেতলি পয়েন্টে পুলিশের অব্যাহত তল্লাশী ।