মেইন ম্যেনু

নোয়াখালীতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদের অফিসে ভাংচুর

এইচ.এম আয়াত উল্যা, নোয়াখালী প্রতিনিধি : নোয়াখালী সদর উপজেলার দাদপুর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ নেতার ছবি ব্যানারে না দেওয়ার জেরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদের অফিসে ব্যাপক ভাংচুর করা হয়। এতে বাধা দিতে গেলে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদের সদস্য ও ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী মো আলমগীর হোসেনকে মারধর করে হামলাকারীরা। দিবাগত রাতে ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ হুগলী গ্রামের মাইন্নার বাড়ীর দরজায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, দাদপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের যুবলীগ ও ছাত্রলীগের কর্মীরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আবদুল মতিন, সাধারণ সম্পাদক মীরনের অনুমতি নিয়ে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ নামে একটি সংগঠন করে। পরে তারা স্থানীয় মাইন্নার বাড়ীর দরজায় বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদের অফিস দেয়। কয়েক দিনের মধ্যে অফিসটি আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করার কথা ছিলো। কিন্তু অফিসে ভিতরে ঝুলানো ব্যানারে উপজেলা আওয়ামীলীগের যুব-ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ও ইউপি নির্বাচনে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মিজানুর রহমান শিপনের ছবি না দেওয়ায় তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে তার লোকজন নিয়ে শনিবার রাতে ওই অফিসে ব্যাপক ভাংচুর করেন। এসময় হামলাকারীরা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিকৃতিও নিচে ফেলে দেয়। এতে বাধা দিতে গেলে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদের সদস্য আলমগীর হোসেনকে বেদম মারধর করে। পরে আলমগীরকে উদ্ধার করে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

হামলায় আহত আলমগীর হোসেন অভিযোগ করে বলেন, হামলাকারী মিজানুর রহমান শিপন তাকে হুমকি দিয়ে বলেছে, তার অনুমতি না নিয়ে ওই এলাকা বঙ্গবন্ধুর নামে কোনো অফিস করা যাবে না। যে করবে তাকে এলাকা ছাড়া করা হবে বলে তিনি হুমকি দেন।

অভিযোগ অস্বীকার করে আওয়ামীলীগ নেতা মিজানুর রহমান শিপন বলেন, আমার প্রতিপক্ষ আমাকে রাজনৈতিকভাবে হেয়পতিপন্ন করতে মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছে। ভাংচুরের বিষয়টি তিনি জানেন বলেও জানান। সুধারাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন জানান, মৌখিকভাবে বিষয়টি আমরা শুনেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হবে। এবিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেলে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



মন্তব্য চালু নেই