শিরোনাম:

পঞ্চগড়ে আমন ধানের বাম্পার ফলনে কৃষকের নতুন স্বপ্ন

দেশের সর্বউত্তরের সীমান্ত জেলা হিমালয় কন্যা পঞ্চগড়। এ জেলায় এখন ফসলের মাঠজুড়ে সোনালী আমন ধানের শীষে দোল খাচ্ছে পুড়ো জেলাজুড়ে। এনিয়ে স্থানীয় কৃষকের মাঝে দোলছে আনন্দের স্বপ্ন মাঠে মাঠে চলছে নতুন ধান কাটার হিড়িক এবং শ্রমিকরা পার করছে ব্যস্ত সময়। এবার পঞ্চগড়ে বর্ষা মৌসুমের আবহাওয়া বেশ অনুকুলে থাকায় আমন ধানের বাম্পার ফলন হয়েছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয় কৃষকেরা। গত বছরের তুলনায় চলতি মৌসুমে এবার আশানুরুপ ফলন হয়েছে।

পঞ্চগড় উপজেলার সদর ইউনিয়নের বুড়িপাড়া এলাকার কৃষক মোঃ সাইবুল ইসলাম তিনি জানান, আমি প্রতি বছর প্রায় ৮ থেকে ১০ বিঘা জমিতে আমন ধান রোপন করে থাকি গত বছরের তুলনায় চলতি মৌসুমে ধানের বাম্পার ফলনের আশাকরছি। আমার গত বছর প্রতি বিঘা জমিতে ধান উৎপাদন হয়েছিল ১৪ থেকে ১৫ মণ পর্যন্ত এবার চলতি মৌসুমে আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় প্রতি বিঘা জমিতে প্রায় ১৮ থেকে ২০ মণ আমন ধান হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তিনি আরও জানান, প্রতি বিঘা জমিতে যে পরিমাণ খরচ হয়েছে তা পুশিয়ে নিয়ে লাভ করা সম্ভব হবে আশা করা যায়। এ বছর বিঘা প্রতি ধানের উৎপাদন বেশি এবং ধানের বাজার মূল্য অনেক ভাল স্থানীয় জগদল বাজারে বর্তমানে প্রতি মণ ধান বিক্রি হচ্ছে ১২৫০ থেকে ১৩০০ টাকা পর্যন্ত।

আমার প্রতি বিঘা জমিতে ধান রোপনে খরচ হয়েছে প্রায় ১৩ থেকে ১৪ হাজার টাকা সব মিলিয়ে বিঘা প্রতি জমিতে প্রায় ৫ থেকে ৬ হাজার টাকা মুনাফা হওয়ার আশংক্ষা রয়েছে।

বর্গাচাষী মোঃ হেদলু মিয়া তিনি বলেন, প্রায় ২৪ থেকে ২৫ বিঘা জমি আমি বর্গা চাষ করে থাকি। প্রতিবছরে গিরি মালিককে বিঘা প্রতি ১০ মণ করে ধান দিতে হয় সারা বছরের জন্য। গত বছর গিরি মালিক কে জমির বাবদ ধান পরিষদ করে আমার সারা বছরের খাবার সংকট হয়েছিল কিন্তু এবার ধান পরিষদ করে আমার আর সংকট হবে না আশা করা যায় এবং চালের দাম অনুযায়ী বাজারে ধানের দাম অনেক ভাল। বর্ষা মৌসুম অনুকুলে থাকায় আমন ধানে এবার রোগবালাই ও পোকামাকড়ের আক্রমণের প্রকোপ তেমন ছিল না আর সময় মত স্যার সরবরাহও ছিল এজন্য আমন ধানের ফলন অনেক ভাল হয়েছে।

পঞ্চগড় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, চলতি মৌসুমে এবার আমন ধানের আবাদের মোট লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছে ১ লক্ষ ত্রিশ হেক্টর জমিতে উৎপাদনের লক্ষমাত্রা প্রায় ১ লক্ষ ছিচল্লিশ হাজার ৪ শত পচাত্তোর মেট্রিক টন ধান। তেঁতুলিয়া উপজেলায় ১১ হাজার ২ শত ২৫ হেক্টর জমিতে উৎপাদন ১৪ হাজার ৯ শত ২৫, সদর উপজেলায় ২৩ হাজার ৯ শত পঞ্চাশ হেক্টর জমিতে উৎপাদন ধরা হয়েছে ২২ হাজার ৩ শত চৌত্রিশ, আটোয়ারী উপজেলায় ১৬ হাজার ৮ শত পচাত্তোর হেক্টর জমিতে উৎপাদন ২১ হাজার ১ শত ১২, বোদা উপজেলায় ২৪ হাজার ত্রিশ হেক্টর জমিতে উৎপাদন ৪৫ হাজার ৮ শত ৯২, দেবীগঞ্জ উপজেলায় ২৩ হাজার ৯ শত ৩০ হেক্টর জমিতে উৎপাদন ৪২ হাজার ২শত ১২ মেট্রিক টন ধান। এজেলায় উফশী ব্রি-৯৩, স্বর্ণা,ব্রি-৫১,ব্রি-৪৯,ব্রি-৫২,ব্রি-৮৭, ব্রি-৩৪, ব্রি-৭৫ ধানের ফনল চলতি মৌসুমে উৎপাদন লক্ষমাত্রা ছড়িয়ে গেছে।

এদিকে পঞ্চগড় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর অতিরিক্ত উপ-পরিচালক (শস্য) মোঃ শাহ্ আলম মিয়া তিনি জানান পঞ্চগড় জেলায় ব্রিধান-৯৩ ধান প্রতি বিঘায় ২২ থেকে ২৪ ধান উৎপাদন হয় চলতি মৌসুমে আবওহায়া অনুকুলে থাকায় এ জেলায় লক্ষমাত্রার চেয়ে অধিক ফলন হয়েছে আমন ধানের।