মেইন ম্যেনু

পঞ্চগড় থেকে কক্সবাজার নৌপথ চালুর পরিকল্পনা

দেশের উত্তর-পশ্চিমের সর্বশেষ জেলা পঞ্চগড় থেকে পূর্ব-দক্ষিণের সর্বশেষ জেলা কক্সবাজার পর্যন্ত নৌপথ চালু হবে বলে জানিয়েছেন নৌ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

এ লক্ষ্যে পুনর্ভবা, আত্রাই, পদ্মা, গড়াই নদীসহ অন্য নদী খনন করা হবে বলে জানা তিনি।

বৃহস্পতিবার বিশ্ব নৌ দিবস উপলক্ষে মিরপুরের মিলিটারি ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজিতে (এমআইএসটি) ‘বাংলাদেশের জাহাজ নির্মাণ শিল্প এবং নৌপরিবহনের অগ্রগতি’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘গত ১০ বছরে নৌপরিবহন সেক্টরে যে উন্নতি হয়েছে, বিগত সময়ে তা হয়নি। পায়রা বন্দর নিয়ে দক্ষিণাঞ্চলের মানুষ এখন স্বপ্ন দেখছে। সেখানে কাজের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন (বিএসসি) ছয়টি জাহাজ সংগ্রহ করেছে, আরও ১০ জাহাজ সংগ্রহের কাজ চলমান। শুধু অর্থনীতি নয়, কর্মক্ষেত্রে সুযোগ ও সম্ভাবনা নিয়ে কাজ করছে সরকার।’

নেভাল আর্কিটেক্টদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘হতাশা নয়, দেশের নেভাল আর্কিটেক্টররা কর্মদক্ষতা দিয়ে বিশ্বে জায়গা করে নিবে, দেশকে তুলে ধরবে।’

এমআইএসটির নৌযান ও নৌযন্ত্র কৌশল বিভাগ আয়োজিত সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন এমআইএসটির কমান্ডেন্ট মেজর জেনারেল মো. ওয়াহিদ-উজ-জামান।

সেমিনারে তিনটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করা হয়। বিআইডব্লিইটিএর চেয়ারম্যান কমডোর এম মাহবুব-উল-ইসলাম ‘নদীমাত্রিক বাংলাদেশের নৌপরিবহন খাতের সমস্যাসমূহের সমাধান এবং এ ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্টদের করণীয়’, নৌপরিবহন অধিদফতরের মহাপরিচালক কমডোর সৈয়দ আরিফুল ইসলাম ‘জাহাজ নির্মাণ শিল্পকে আধুনিকায়ন ও লাভজনক করার লক্ষ্যে বর্তমান সরকারের গৃহীত নানা কর্মসূচি এবং বিধিবিধান’ এবং ইঞ্জিনিয়ার এবিএম মাহবুবুর রশিদ ‘নতুন নতুন জাহাজের ডিজাইন প্রকৃতি ও কাঠামো বিশ্লেষণ’ বিষয়ক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।



মন্তব্য চালু নেই