প্রধান ম্যেনু

পবিত্র শবে মেরাজ ২২ মার্চ

বাংলাদেশের আকাশে সোমবার রজব মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। বুধবার থেকে শুরু হবে নতুন মাস। সে হিসেবে বাংলাদেশে আগামী ২২ মার্চ দিবাগত রাতে শবে মেরাজ পালন করবেন মুসলমানরা। এর পরদিন ২৩ মার্চ থাকবে ঐচ্ছিক ছুটি।

সোমবার সন্ধ্যায় ইসলামিক ফাউন্ডেশনে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

চাঁদ দেখা কমিটির সভাপতি ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ সাংবাদিকদের বলেন, (সোমবার) বাংলাদেশের আকাশে রজব মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। ফলে বুধবার থেকে রজব মাস গণনা শুরু হবে। তাই ২৬ রজব বা ২২ মার্চ দিবাগত রাতে সারা দেশে সরে মেরাজ পালিত হবে।

ইসলাম ধর্মীয় বিশ্বাস অনুযায়ী, বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) নবুওয়াত লাভের একাদশ বর্ষের রজব মাসের ২৬ তারিখ দিনগত রাতে আল্লাহর বিশেষ মেহমান হিসেবে আরশে আজিমে আরোহণ করেন। তিনি আল্লাহ তায়ালার দিদার লাভ করেন এবং পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের হুকুম নিয়ে দুনিয়ায় প্রত্যাবর্তন করেন। তিনি অবলোকন করেন সৃষ্টিজগতের সমস্ত কিছুর অপার রহস্য। মুহাম্মদ (সা.) এর জীবনের সবচেয়ে আলোড়ন সৃষ্টিকারী ঘটনা ‘মেরাজ’। হযরত মুহাম্মদ ছাড়া অন্য কোনো নবী এই পরম সৌভাগ্য লাভ করতে পারেননি। এ মেরাজ রজনীতেই মানবজাতির শ্রেষ্ঠ ইবাদত পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ ফরজ হয়। এজন্য মুসলিম ধর্মালম্বীদের কাছে মিরাজের তাৎপর্য অনেক গুরুত্ব বহন করে।

সারাবিশ্বের মতো বাংলাদেশের মুসলমানরাও এই রাতটি ইবাদতের মধ্য দিয়ে পালন করে থাকে। কুরআন তিলাওয়াত, নামাজ, জিকির, দোয়া-দরুদ, মিলাদ মাহফিলের মধ্য দিয়ে রাতটি কাটান মুসলমানরা। রজব মাস শুরুর মধ্য দিয়ে পবিত্র রমজানের দিনক্ষণ গণনা শুরু হয়। এর ঠিক দুই মাস পর শুরু হয় রমজান। রজব মাস শুরুর মধ্য দিয়ে রমজানের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেন ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা।



মন্তব্য চালু নেই