শিরোনাম:

মিডিয়ার কল্যানে শিশু ফিরে পেলো বাবাকে

পরকিয়ায় বাচ্চাকে ফেলে পালিয়ে গেলো মা!

যশোরের বেনাপোলে ফেলে যাওয়া দেড় বছর বয়সী সেই শিশুটির পরিচয় মিলেছে। তার নাম আলিফ হাসান। পরকিয়ার টানে শুক্রবার (২এপ্রিল) সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে তার মা” মুন্নি বেগম নিজের পুত্র আলিফ হাসানকে বেনাপোল বাজারে একটি চায়ের দোকানে ফেলে প্রেমিকের হাত ধরে পালিয়ে যায়।

আলিফ হাসান নড়াইল জেলার কালিয়া থানার খড়লিয়া গ্রামের কালু মিয়ার ছেলে।

কালু মিয়া স্ত্রী সন্তান নিয়ে বর্তমান বেনাপোল পোর্ট থানার সাদীপুর গ্রামের খেয়াঘাট পাড়া এলাকায় বসবাস করছেন।

কালু মিয়া জানান, তার স্ত্রী মুন্নি বেগম পরকীয়ায় আসক্ত ছিল। সে তার সংসার করবে না বলে পূর্বে কয়েকবার জানিয়ে দেয়। বিষয়টি গুরুত্ব না দেয়ায় মুন্নি বেগম শুক্রবার সন্ধ্যায় ৮ বছরের মেয়েকে বাড়িতে রেখে এবং দেড় বছরের শিশু আলিফকে সাথে নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। বেনাপোল বাজারে এসে আলিফকে একটি চায়ের দোকানে রেখে তার স্বামী কালু মিয়াকে ফোনে জানায় যে, বাচ্চাকে সে বেনাপোল বাজারে এক দোকানে রেখে চলে গেছে। এ খবর শুনে তৎক্ষনাৎ কালু মিয়া খোঁজ খবর নিয়েও শিশু কে পাননি। পরবর্তীতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার কারণে শনিবার (৩ এপ্রিল) বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের কাছ থেকে বাচ্চাটি নিজের কাছে নিয়ে যায় তার পিতা।

বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন খান বলেন, শুক্রবার (২ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৭টার সময় মুন্নি বেগম নামে এক নারী তার শিশু বাচ্চাটিকে বেনাপোল বাজারে একটি চায়ের দোকানে ফেলে চলে যায়। দীর্ঘ সময় পেরিয়ে গেলেও শিশুটির মা ফিরে না আসায় দোকানদার শিশুটিকে নিয়ে থানায় এসে বিস্তারিত জানায়। এরপর বাচ্চাটিকে পুলিশের হেফাজতে রেখে তার পরিবারের অনুসন্ধান করা হয়। মিডিয়ার কল্যাণে খুব দ্রুত শিশুটিকে তার বাবার কাছে ফিরিয়ে দেয়া হয়।

এদিকে, মায়ের এমন আচরণে সকলে ধিক্কার জানাচ্ছে বলে জানা গেছে।



মন্তব্য চালু নেই