মেইন ম্যেনু

পল্লীনিবাসে চিরনিদ্রায় শায়িত এরশাদ

সকল নাটকীয়তার অবসান ঘটিয়ে সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদকে শেষ ইচ্ছানুযায়ী তাঁর জন্মস্থান রংপুরের পল্লীনিবাসে শায়িত করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে জেলা কালেক্টরেট মাঠে চতুর্থ জানজা ও বিকেল ৫টা ৪০ মিনিটে তার দাফন সম্পন্ন হয়। এসময় এরশাদ ভক্তরা কান্নায় ভেঙে পড়েন।

তিনদফা জানাজা শেষে মঙ্গলবার এরশাদকে রংপুরে নেওয়া হয়। সেখানে চতুর্থ জানাজা শেষে পুনরায় ঢাকায় আনার চেষ্টা করা হলে উত্তরাঞ্চলের জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা তাঁর কফিন আটকে রাখে। এরপর সার্বিক অবস্থা বিবেচনা করে এরশাদের স্ত্রী ও জাতীয় সংসদের উপনেতা রওশন এরশাদ পল্লীনিবাসেই এরশাদকে দাফনের অনুমতি দেন।

এরশাদের ভাই জিএম কাদের বলেন, এরশাদের প্রতি রংপুরের মানুষের ভালোবাসা আর শ্রদ্ধা দেখে ভাবি (রওশন এরশাদ) সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেন। তাই ভাইকে পল্লীনিবাসেই দাফন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এর আগে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এরশাদকে রংপুরে নেওয়া হলে, লাখ লাখ মানুষ তাকে একনজর দেখতে ভিড় জমায়।

উল্লেখ্য,গত রোববার (১৪ জুলাই) রাজধানীর সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান সাবেক এ রাষ্ট্রপতি।

সে সময় এরশাদকে সামরিক কবরস্থানে দাফন করার কথা জানিয়েছিলেন রওশন।



মন্তব্য চালু নেই