শিরোনাম:

পাচারের টাকায় কানাডায় বেগমবাজার : রিজভী

বাংলাদেশ থেকে টাকা পাচার করে সরকারি দলের নেতারা কানাডায় স্ত্রীদের নামে জায়গা-জমি কিনেছেন বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

শনিবার দুপুরে খুলনা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে দলের এক প্রতিনিধি সভায় এই অভিযোগ করেন বিএনপি নেতা। এর আগে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও একই অভিযোগ করেছিলেন।

বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর আমাদের নতুন নতুন অনেক কিছুই উপহার দিয়েছেন। তারা উপহার দিয়েছেন হাসিনা মার্কা গণতন্ত্র, হাসিনা মার্কা উন্নয়ন। সেই উন্নয়নে দেখি, একটি ফ্লাইওভারের কাজ ১০০ কোটি টাকা দিয়ে শুরু হয়ে এক হাজার কোটি টাকায় ঠেকেছে। তারপরও দুর্ভোগ কমছে না।’

‘এর মধ্য দিয়ে ফুলে-ফেপে নাদুস-নুদুস হচ্ছেন আওয়ামী লীগ নেতারা। আমরা শুনি, কানাডায় বেগমপাড়া করা হয়েছে। উন্নয়নের নামে, দুর্নীতি করে, ব্যাংক লুটে হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট করে ক্ষমতাসীন দলের নেতারা তাদের স্ত্রীদের নামে কানাডায় নিয়ে যাচ্ছেন। সেখানে জমি, বাড়ি কিনছেন। যে জায়গায় এসব করা হচ্ছে সেই জায়গাটিকে বেগমবাজার নামে অভিহিত করা হচ্ছে।’

বর্তমান সংসদকে ‘একদলীয় ও বাকশালীয়’ পার্লামেন্ট হিসেবে উল্লেখ করে রুহুল কবির রিজভী বলেন, সেখানে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতি রোধে যে আইন আনা হচ্ছে, তা হবে মূলত ইতিহাস-বিকৃতির স্বীকৃতি দেওয়ার আইন। যাঁরা বস্তুনিষ্ঠ ইতিহাস লিখবেন, যাঁরা প্রকৃত ইতিহাস লিখবেন, তারা এই দুঃশাসনের মধ্যে সত্য ইতিহাস লিখতে পারবেন না। যাঁরা প্রকৃত ইতিহাস লিখবেন তাঁদের কারাগারে নেওয়ার জন্যই এই আইন করা হচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

এ সময় বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব সুন্দবনের পাশে রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র বাতিলের দাবিও জানান। তিনি বলেন, এটি হলে সুন্দরবনসহ খুলনা অঞ্চল বিষাক্ত গ্যাস চেম্বারে পরিণত হবে। মানুষ গৃহহীন কর্মহীন হয়ে পড়বে।

মহানগর বিএনপির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মঞ্জুর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন বিএনপির তথ্যবিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত, সাবেক সংসদ সদস্য প্রবীণ জননেতা এম নূরুল ইসলাম দাদুভাই, খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি, বিএনপি নেতা সাহরুজ্জামান মোর্ত্তজা প্রমুখ।