শিরোনাম:

পাপুলের এমপি পদ বাতিলের বৈধতা চ্যালেঞ্জের রিট খারিজ

কুয়েতের আদালতে কারাদণ্ডপ্রাপ্ত শহিদ ইসলাম পাপুলের লক্ষ্মীপুর-২ আসন শূন্য ঘোষণা এবং উপনির্বাচনের তফসিলের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে করা রিট খারিজ করেছেন হাইকোর্ট।

মঙ্গলবার (০৮ জুন) বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার বেঞ্চ শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

আদালত আদেশে বলেছেন, শুধু বাংলাদেশের আদালত না পৃথিবীর যে কোনো সার্বভৌম রাষ্ট্রে কেউ দুই বছরের সাজা হলেই তা ডিসকোয়ালিফাই হবে। এছাড়াও পাপুলের বোন যেহেতু সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি না তাই তিনি রিটটি করতে পারেন না।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ ও ব্যারিস্টার মোস্তাফিজুর রহমান খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার নওরোজ মো. রাসেল চৌধুরী।

প্রসঙ্গত, ঘুষ লেনদেনের দায়ে কুয়েতের আদালতে দণ্ডিত হলে সাংসদ শহিদ ইসলাম পাপুলের আসনটি শূন্য ঘোষণা করে গত ২২ ফেব্রুয়ারি গেজেট প্রকাশ করে জাতীয় সংসদ সচিবালয়। পরবর্তী সময় নির্বাচন কমিশন ওই আসনে উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে। উপনির্বাচনের তফসিলের বৈধতা এবং আসন শূন্য ঘোষণা চ্যালেঞ্জ করে পরে শহিদ ইসলামের বোন নুরুন্নাহার বেগম এবং ওই আসনের এক বাসিন্দা হাইকোর্টে রিটটি করেন।

গত বছর ৬ জুন কুয়েতের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) পাপুলকে কুয়েতে গ্রেপ্তার করে। সেই থেকে পাপুল কুয়েতের কারাগারে বন্দি। এ অবস্থায় গত ২৮ জানুয়ারি পাপুলকে চার বছরের কারাদণ্ড দেন কুয়েতের আদালত। ওই রায়ের কপি হাতে পাওয়ার পর পাপুলের আসন শূন্য ঘোষণা করা হয়।



মন্তব্য চালু নেই