শিরোনাম:

পাবনার সাঁথিয়ায়

দ্বি-ফসলি ‘বাঙ্গি’ চাষে কৃষকের সাফল্য

পাবনার সাঁথিয়ার কৃষকেরা চলতি মৌসুমে বাঙ্গি চাষ করে ব্যাপক সফলতা অর্জন করেছেন। বাঙ্গি একটি সু-স্বাদু রসালো ফল। বাঙ্গি বেলে দোঁ-আশ মাটিতে ভালো জন্মে।

এ বছর পাবনার সাঁথিয়া উপজেলা আফড়া, শামুকজানি, মঙ্গলগ্রাম, হেঙ্গুয়া, পুন্ডুরিয়াসহ বিভিন্ন মাঠে বাঙ্গির আবাদ করেছে স্থানীয় কৃষকেরা। তারা রসুন এবং পেঁয়াজের জমিতেই বীজ রোপণ করে। দ্বি-ফসলি হিসেবে এবার কৃষকেরা অনেক ভালো ফলনও পেয়েছেন।

হেঙ্গুয়া গ্রামের মুনির সরদার বলেন, আমি আশা করছি আমার দেড় বিঘা জমি হতে দুই থেকে আড়াই লক্ষ টাকার বাঙ্গি বিক্রি করতে পারবো। ইতোমধ্য আমি, এক লাখ ষাট হাজার টাকার বাঙ্গি বিক্রি করেছি। বর্তমানে এক একটার মূল্য এক শত থেকে একশত বিশ টাকা। কয়েক দিন পরে এর দাম কিছুটা কমবে।”

আফড়ার আবীর মোল্লা বলেন, আমার দশ শতক জমিতে উৎপাদিত পঞ্চাশ হাজার টাকার বাঙ্গি বিক্রি করেছি। রমজানে দাম ভাল থাকায় কৃষকেরা বেশি লাভবান হচ্ছে। এটি কাঁচা থাকলে সবুজ এবং পাকলে হলুদ হয়। পুষ্টিগুণ সম্পূর্ণ এই ফসলে ভিটামিন, ফলিক, ক্যালসিয়াম এবং পটাশিয়াম বিদ্যমান। সবজি হিসেবেও অনেকে বাঙ্গি খেয়ে থাকে।

পুষ্টি বিশেষজ্ঞ সাদিয়া জাহান বলেন, রোজায় নিয়মিত বাঙ্গি খেলে লিভার ও যকৃত ভালো থাকবে এবং শরীর ঠান্ডা ও মন শান্ত থাকবে।

সাঁথিয়া উপজলা কৃষি কর্মকর্তা সঞ্জিব কুমার গোস্বামী বলেন, উন্নত বীজ ও আধুনিক পদ্ধতিতে কৃষকেরা আবাদ করলে ফলন আরো বেশি হত। আমাদের কাছে পরামর্শের জন্য অনেকে আসে। আমরা তাদের বীজ সংরক্ষণ পদ্ধতি এবং উন্নত চাষ প্রণালির কথা বলে থাকি।