পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক পরীক্ষা নিতে চান উপাচার্যরা

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের হল গুলো বন্ধ রেখে একাডেমিক পরীক্ষা নিতে চান দেশের কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা। বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সঙ্গে পরীক্ষা সংক্রান্ত বিষয়ে কথা বললে তারা এ কথা জানান।

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা বলেছেন যে,গত এক বছর ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। শিক্ষার্থীদের সেশনজট কমাতে ইউজিসির সুপারিশের আলোকে পরীক্ষা শুরু করা হয়েছিল। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের প্রতি সন্মান রেখে তারা সব পরীক্ষা স্থগিত করেছেন।এর আগে গত ২০ ফেব্রুয়ারি শিক্ষা মন্ত্রী ডা.দীপু মনির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য চলমান পরীক্ষা অব্যহত রাখার বিষয়টি উপস্থাপন করেন।

বৈঠকে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ছাড়া ও ইউজিসির চেয়ারম্যান ও মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব উপস্থিত ছিলেন।এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাস কে বলেন যে, পরীক্ষা না হওয়ায় আমাদের অনেক শিক্ষার্থী সার্টিফিকেট পাচ্ছে না।যার ফলে তারা চাকরির ক্ষেত্রে পিছিয়ে যাচ্ছে।

ছাত্র -ছাত্রীদের সার্বিক সমস্যার কথা বিবেচনা করে পরীক্ষা চলমান রাখার কথা বৈঠকে জানিয়ে ছিলাম।তবে বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা জানানো হয়েছে।

তিনি আর ও বলেন যে, দেশের স্বায়ত্তশাসিত বিশ্ববিদ্যালয় গুলো ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের প্রতি সন্মান জানিয়ে পরীক্ষা স্থগিত রেখেছে। তবে যে পরীক্ষা গুলো বাকী রয়েছে হল না খুলে সেই পরীক্ষা গুলো নিতে চান ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা। পরীক্ষা হলে শিক্ষার্থীরা সার্টিফিকেট পাবে।সেটি দিয়ে তারা দেশের সেবায় নিয়েজিত হবে। এতে রাষ্ট্রেরই উপকার হবে বলে ও জানান ওই উপাচার্য।



মন্তব্য চালু নেই