মেইন ম্যেনু

পুলিশকে কুপিয়ে সহযোগীদের ছিনিয়ে নিল মাদক ব্যবসায়ীরা

রাজশাহী নগরীর উপকণ্ঠ পদ্মার চরে পুলিশকে কুপিয়ে যখম করে সহযোগীদের ছিনিয়ে নিয়েছে মাদক ব্যবসায়ীরা। সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে কাটাখালী থানাধীন খিদিরপুর মধ্যচর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পরে রাত ৮টার দিকে আহত দুই পুলিশ সদস্যকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নেয়া হয়। তারা হলেন- নগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মাহাবুব হোসেন (৩৫) ও কনস্টেবল সুজন আলী (২৮)।

রামেক হাসপাতাল পুলিশ বক্সের ইনচার্জ (উপপরিদর্শক) রফিকুল ইসলাম এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, রাত ৮টার দিকে ওই দুই পুলিশ সদস্যকে হাসপাতালে নেয়া হয়। আহত দুজনের শরীরে ধারালো অস্ত্রের গুরুতর যখম রয়েছে। এদের মধ্যে এএসআই মাহবুবের অবস্থা বেশ গুরুতর।

ঘটনাস্থল পবা উপজেলার ৬ নম্বর হরিয়ান ইউনিয়নের আওতাধীন। ওই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মফিদুল ইসলাম বাচ্চু বলেন, পদ্মার ভাঙনকবলিত বিভিন্ন এলাকার লোকজন ভারতীয় সীমান্তঘেঁষা খিদিরপুর মধ্যচরে আবাস গড়েছে। এদের একটি চক্র সীমান্ত অপরাধেও জড়িয়েছে।

তিনি শুনেছেন, এদেরই ধরতে বিকেলে পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়। তারা আক্কাস আলীসহ তিন মাদক ব্যবসায়ীকে মাদকসহ হেফাজতেও নেয়। পরে তাদের পদ্মার এপারে নিয়ে আসার সময় ওই তিন মাদক ব্যবসায়ীর সহযোগীরা পুলিশের ওপর সশস্ত্র হামলা চালায়।

দুই পুলিশ সদস্যকে যখম করে ছিনিয়ে নেয় অস্ত্র। ছিনিয়ে নিয়ে যায় মাদক ব্যবসায়ীদেরও। ওই এলাকার অপরাধ নির্মূলে পুলিশ এর আগেও বিভিন্ন সময় অভিযান চালিয়েছে বলে জানান চেয়ারম্যান।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রাজশাহী নগর পুলিশের মুখপাত্র ইফতেখায়ের আলম জানান, আসামি গ্রেফতার করে নিয়ে আসার সময় দুর্বৃত্তদের হামলার শিকার হয় পাঁচ সদস্যের পুলিশের ওই দলটি। হামলাকারীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে দুই পুলিশ সদস্যকে কুপিয়ে জখম করে আসামি ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

খবর পেয়ে কাটাখালী থানা পুলিশ আহত পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে। এরপর দুর্বৃত্তদের ধরতে অভিযান শুরু হয় ওই এলাকায়।

পুলিশের অস্ত্র ছিনতাই হয়েছে কি না জানতে চাইলে এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, এখনো আমরা সেটি নিশ্চিত হতে পারিনি। এ নিয়ে আইনত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।



মন্তব্য চালু নেই