শিরোনাম:

প্রবাসী আয়ে সপ্তম স্থানে বাংলাদেশ: বিশ্বব্যাংক

রেমিট্যান্স তথা প্রবাসী আয়ের ক্ষেত্রে আবারও বিশ্বের শীর্ষ ১০ দেশের মধ্যে ৭ম স্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। ২০২১ সালে প্রবাসী আয় সম্পর্কিত বিশ্বব্যাংকের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। প্রবাসী আয়ে শীর্ষ ছয়ে থাকা দেশগুলো হচ্ছে-ভারত, মেক্সিকো, চীন, ফিলিপাইন, মিশর ও পাকিস্তান। দক্ষিণ এশিয়ার ৮টি দেশের মধ্যে ভারত ও পাকিস্তানের পরেই বাংলাদেশের অবস্থান।

মঙ্গলবার (১০ মে) প্রকাশিত বিশ্বব্যাংকের ‘মাইগ্রেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ব্রিফ’ শীর্ষক প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০২১ সালে বাংলাদেশে প্রবাসী আয়ের প্রবাহ মাত্র ২.২ শতাংশ (২২ বিলিয়ন ডলার) প্রবৃদ্ধি হয়েছে।

এতে আরও বলা হয়, মূলত সরকারি প্রণোদনা ও দেশে পরিবারের কাছে অর্থ পাঠানোর কারণে এই প্রবৃদ্ধি হয়েছে। চলতি বছরের শেষ নাগাদ প্রবৃদ্ধির হার হতে পারে মাত্র ২ শতাংশ।

চলতি বছর রোজার শুরুতে (মার্চ মাসে) প্রবাসী আয়ে ২৪ শতাংশ অতিক্রম করেছিল। এছাড়া গত ৮ মাসে দেশে প্রবাসী আয়ে প্রবৃদ্ধি কমেছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

২০২০ সালে করোনার কারণে বিশ্ব অর্থনীতি স্থবির হয়ে পড়ার পর ২০২১ সালে ভারতের রেমিট্যান্স প্রবৃদ্ধির হার ৮ শতাংশ বেড়ে ৮৯ বিলিয়ন ডলার হয়। অন্যদিকে পাকিস্তানে রেমিট্যান্স প্রবৃদ্ধির হার ২০ শতাংশ বেড়ে ৩১ বিলিয়ন হয়।

প্রতিবেদনে ২০২১ সালে যুক্তরাষ্ট্র থেকে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে সবচেয়ে বেশি রেমিট্যান্স এসেছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

ভারতে চলতি বছর (২০২২ সালে) রেমিট্যান্স প্রবৃদ্ধির হার ৫ শতাংশ বাড়বে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে বিশ্বব্যাংক। অন্যদিকে পাকিস্তানে এ বছর রেমিট্যান্স ৮ শতাংশ বেড়ে ৩৪ বিলিয়ন ডলার হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

প্রতিবেদনে ২০২৩ সালে দক্ষিণ এশিয়ার রেমিট্যান্স প্রবৃদ্ধির হারকে ‘অনিশ্চিত’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এদিকে রাশিয়ার হামলার শিকার ইউক্রেনে হঠাৎ প্রবাসী আয়ের প্রবাহ বেড়ে গেছে। চলতি বছর ইউক্রেনে প্রবাসী আয়ের প্রবাহ ২০ শতাংশের বেশি বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে বিশ্বব্যাংক।