মেইন ম্যেনু

ফেনীতে মাটিতে পুঁতে রাখা স্কুলছাত্রের লাশ উদ্ধার

ফেনীতে মাটিতে পুঁতে রাখা আরাফাত হোসেন (১৩) নামে এক স্কুলছাত্রের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোমবার সকালে শহরের পাঠানবাড়ি এলাকার জেবি টাওয়ারের পাশ থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

আবুধাবী প্রবাসী জসিম উদ্দিনের ছেলে আরাফাত ফেনী পুলিশ লাইন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র ছিল। তারা শহরের পাঠানবাড়ি এলাকার একটি ভাড়া বাসায় বেশ কিছুদিন ধরে বসবাস করছিল।

পুলিশ জানিয়েছে, রোববার রাত থেকে নিখোঁজ আরাফাতকে হত্যার পর তার লাশ মাটিতে পুঁতে রাখা হয়। ইট দিয়ে তার মাথায় আঘাত করে থেতলে দেয়া হয়েছে। মৃত্যু নিশ্চিত করার পর তাকে মাটিতে পুঁতে ফেলা হয়। ঘটনাস্থল থেকে বেশ কিছু আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে।

এ ঘটনায় সাব্বির হোসেন নামে এক কিশোরকে অভিযুক্ত করা হচ্ছে। সে পলাতক হলেও তার মা ও ভাইকে আটক করা হয়েছে।

নিহতের পরিবার জানিয়েছে, সাব্বিরের সঙ্গে আরাফাতের খেলাধুলা নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এ ঘটনার জেরে সাব্বির রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে আরাফাতকে জেবি টাওয়ারের পাশের পরিত্যক্ত নির্জন জায়গায় ডেকে নিয়ে যায়।

রাত সাড়ে ১০টার দিকে সাব্বির সেখান থেকে বেরিয়ে আসার সময় এলাকাবাসী আরাফাতের বিষয়ে জানতে চাইলে সে দৌঁড়ে পালিয়ে যায়। এরপর থেকেই আরাফাত নিখোঁজ ছিল।

অনেক খোঁজাখুজির পর তাকে না পেয়ে স্বজনরা ফেনী মডেল থানায় অভিযোগ করেন। সোমবার সকালে খোঁজাখুজির একপর্যায়ে ওই পরিত্যক্ত জায়গাটির এক পাশে মাটিতে পুঁতে রাখা একটি পা দেখতে পায় এলাকাবাসী।

পরে পুলিশে খবর দিলে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত সাব্বিরের মা আউলিয়া বেগম ও ভাই আজিয়ার হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ।

ফেনী মডেল থানার পরিদর্শক (ওসি) আবুল কালাম আজাদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত সাব্বিরকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।



মন্তব্য চালু নেই