প্রধান ম্যেনু

বইমেলায় সাড়া জাগিয়েছে আলাউদ্দিন আদরের ‘সময়ের শিলালিপি’

অমর একুশে বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছে কবি ও কথাশিল্পী আলাউদ্দিন আদরের চতুর্থ বই ‘সময়ের শিলালিপি’। বইটির প্রচ্ছদ করেছেন সোহানুর রহমান অনন্ত।

ঢাকার জাতীয় গ্রন্থমেলায় কুঁড়েঘর প্রকাশনীর ৪০৫-৪০৬ নম্বর স্টলে পাওয়া যাচ্ছে বইটি। তবে মেলার বাইরে বইটি পাওয়া যাচ্ছে রকমারিতে।

‘সময়ের শিলালিপি’ বইটি মেলায় আসার পর বেশ সাড়া জাগিয়েছে। সরেজমিনে কুঁড়েঘর প্রকাশনীর ৪০৫-৪০৬ নম্বর স্টলের সামনে গিয়ে অনেকের বইটি সংগ্রহ করতে দেখা যায়।

আলাউদ্দিন এখন নিয়মিত কবিতা লিখছেন। তবে বেশি সময় দেন গবেষণাধর্মী কাজে। তার লেখা ‘খুশির চাঁদ’, ‘ফেরার গান’ নামের গানগুলো হয়েছে সমাদৃত ও দর্শক-শ্রোতা নন্দিত। লেখালেখির সঙ্গে জড়িত তরুণদের নিয়ে তার ‘এসো শিখি’ নামে একটি টিমও রয়েছে।

২০১৮ সালে দাঁড়িকমা প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হয় প্রথম কবিতার বই ‘নিবন্ধিত নারী’ এবং প্রিয় বাংলা প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হয় গবেষণাধর্মী প্রবন্ধের বই ‘সাহিত্যে নোবেল : ভেতর বাহির’। ২০১৯ সালে দাঁড়িকমা থেকে প্রকাশিত হয় স্বল্পদৈর্ঘ্যের কবিতার বই ‘এক টুকরো হৃদয়’।

নতুন বই নিয়ে আলাউদ্দিন আদর বলেন, শিলালিপি মানে-প্রস্তরে উৎকীর্ণ লিপি। আর সময়ের শিলালিপি মানে হচ্ছে সেই প্রস্তর লিপি যা ধারণ করে সময়কে। সহজ কথায়-সময়ের (ইতিহাসের ধারক) শিলালিপি। যে কবিতায় জীবনের বাস্তবতা উঠে আসে, ধারণ করে সময়কে তা স্বার্থক কবিতা। যে কথাগুলো পূর্বে বলা হয়নি, যে পথে কেউ পূর্বে মাড়ায়নি, এতদিন যে বোধের প্রকাশ হয়নি, যে প্রতিবাদ করা হয়নি সেইসব অনুচ্চারিত বিষয়াধির স্বচ্চ ও শিল্পময় প্রকাশ ঘটে কবিতায়। সেই স্বচ্চ ও শিল্পময় কাব্যজগতের নির্মাণ হয় একজন কবির কলমে। এইসব তাত্ত্বিক বাক্য ধারণ করেই কবি আলাউদ্দিন আদর লিখেছে ‘সময়ের শিলালিপি’।

আলাউদ্দিন আদরের জন্ম ফেনী জেলার সদর থানায়। স্কুলে পড়ার সময়ই লেখালেখির হাতেখড়ি। প্রথম লেখা প্রকাশ পেয়েছে ফেনী থেকে প্রকাশিত একটি সাপ্তাহিক পত্রিকায়। খাইয়ারা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করার পর ফেনী শহরে থিতু হন। ফেনী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট থেকে করেন সিভিল টেকনোলজিতে ডিপ্লোমা, বিএসসি এশিয়া প্যাসেফির ইউনিভার্সিটি থেকে। চালান নির্মাণ পরামর্শক একটি প্রতিষ্ঠান। দীর্ঘদিন যাবত সম্পাদনা করছেন সময়ের জানালা নামের একটি সাহিত্য পত্রিকা।



মন্তব্য চালু নেই