মেইন ম্যেনু

বগুড়ায় ধর্ষণ ও মা-মেয়েকে নির্যাতন : কাউন্সিলর রুমকিসহ ৭ জন রিমান্ডে

বগুড়ায় মা-মেয়ে নির্যাতনের ঘটনায় কাউন্সিলর মারজিয়া হাসান রুমকিকে ৪ দিন ও অন্য ছয় আসামির ২ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।

সোমবার বিকালে বগুড়ার অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক শ্যামসুন্দর রায় এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বগুড়া সদর থানার ওসি (অপারেশন) আবুল কালাম আজাদ তাদের আদালতে নিয়ে প্রত্যেকের ৭ দিনের করে রিমান্ড আবেদন করেন।

শ্রমিক লীগ নেতা তুফান সরকারের ধর্ষণের শিকার ছাত্রী ও তার মাকে নির্যাতন করে ন্যাড়া করে দেয়ার সঙ্গে জড়িত থাকায় বগুড়া পৌরসভার কাউন্সিলর মারজিয়া হাসান রুমকি ও তার মা রুমা খাতুনকে রোববার গ্রেফতার করে পুলিশ।

প্রসঙ্গত, কলেজে ভর্তির নামে এক ছাত্রীকে (১৭) বাড়িতে নিয়ে বগুড়া শহর শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক তুফান সরকার ধর্ষণ করেছে।

এ ঘটনায় তার স্ত্রীর বোন বগুড়া পৌরসভার ২ নম্বর সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর মার্জিয়া হাসান রুমকি বিচারের নামে ওই ছাত্রী ও তার মাকে বাড়িতে ডেকে নির্যাতন চালিয়েছে।

তুফান বাহিনীর সদস্যদের দিয়ে কেটে দিয়েছে মা ও মেয়ের মাথার চুল। এরপর নাপিত ডেকে দু’জনের মাথা ন্যাড়া করে বাড়ি পাঠানোর সময় বগুড়া ত্যাগ করতে হুমকি দিয়েছে। এমনকি মালামাল পরিবহনের সুবিধার্থে বাড়িতে পিকআপ ভ্যানও পাঠায়।

ছাত্রী ও তার মাকে নির্যাতন এবং মাথা ন্যাড়া করার ঘটনা শুক্রবার দুপুরের।

পরে রাত ১২টার পর সদর থানা পুলিশ ঘটনা জানতে পেরে ভিকটিমদের সুচিকিৎসার ব্যবস্থা ও রাতভর অভিযান চালিয়ে তিন সহযোগীসহ তুফানকে আটক করে।

ছাত্রীর মা শনিবার দুপুরে সদর থানায় তুফান, কাউন্সিলর রুমকিসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে অপহরণ, ধর্ষণ ও অন্যান্য ধারায় মামলা করেন।



মন্তব্য চালু নেই