মেইন ম্যেনু

বগুড়ায় রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে মাদ্রাসারছাত্রীকে ধর্ষণ

জমিজমা নিয়ে বিরোধের জের ধরে বগুড়ার ধুনট উপজেলায় চিকাশি ইউনিয়ন এলাকার একটি রাস্তা থেকে মাদ্রাসার এক ছাত্রীকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করেছে নুর মোহাম্মাদ বাবু (২০) নামে এক বখাটে।

মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) দুপুরের দিকে ধর্ষিত মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে নুর মোহাম্মাদ বাবুর বিরুদ্ধে ধুনট থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে। নুর মোহাম্মাদ বাবু উপজেলার বড়িয়া গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে।

মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বড়িয়া গ্রামের এক কৃষকের মেয়ে এ বছর দাখিল পরীক্ষা দিয়েছে। ওই কৃষকের সঙ্গে বখাটে নুর মোহাম্মাদের বাবার পূর্ব থেকে জমিজমা নিয়ে বিরোধ রয়েছে। এই বিরোধের জের থেকে নজরুল ইসলাম ও তার পরিবারের লোকজন বিভিন্নভাবে আব্দুল ওয়ারেছের ক্ষতি করার চেষ্টা করে।

এ অবস্থায় গত ১১ এপ্রিল বিকেল ৪টার দিকে আব্দুল ওয়ারেছের মেয়ে বান্ধবীর বাড়িতে বেড়ানোর উদ্যেশে বাড়ি থেকে বের হয়। পথিমধ্যে বড়িয়া পূর্বপাড়া রাস্তায় পৌঁছলে বখাটে নুর মোহাম্মাদ বাবু মেয়েটিকে অপহরণ করে প্রথমে সিএনজি ও পরে মাইক্রোবাসযোগে নারায়নগঞ্জ জেলা শহর এলাকায় নিয়ে যায়। সেখানে একটি বাসায় মেয়েটিকে আটক রেখে ধর্ষণ করে নুর মোহাম্মাদ বাবু।

এ দিকে মেয়েকে অপহরণের বিষয়টি থানা পুলিশকে জানায় আব্দুল ওয়ারেছ। থানা পুলিশ মেয়েটিকে উদ্ধারের জন্য বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে। একপর্যায়ে নুর মোহাম্মাদ বাবু সোমবার (১৫ এপ্রিল) সকালে মেয়েটিকে ধুনটে রেখে পালিয়ে যায়। ওই রাতেই মেয়েটি থানায় আশ্রয় নিয়ে পুলিশের নিকট ঘটনাটি প্রকাশ করে।

ধুনট থানার ওসি ইসমাইল হোসেন বলেন, এই মামলার একমাত্র আসামি নুর মোহাম্মাদ বাবুকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। বুধবার (১৭ এপ্রিল) মেয়েটির শারীরিক পরীক্ষার জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং ১৬৪ ধারায় জবানবন্ধী রেকর্ড করার জন্য বগুড়া আদালতে পাঠানো হবে।



মন্তব্য চালু নেই