বঙ্গবন্ধু ভবনে ঢুকতে দেয়া হলো না কাদের সিদ্দিকীকে

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাতবার্ষিকীতে এবার বঙ্গবন্ধু ভবনে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর আবদুল কাদের সিদ্দিকীকে।

বৃহস্পতিবার জাতীয় শোক দিবসের বিকেল সাড়ে ৪টায় ধানমণ্ডি ৩২ নম্বরের বঙ্গুবন্ধু ভবনের গেটে দাঁড় করিয়ে নিরাপত্তাকর্মীরা তাকে জানান ভিতরে যাবার অনুমতি তার নেই।

কাদের সিদ্দিকীর সহকর্মী হাবিব উন নবী সোহেল গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানান।

প্রতি বছর জাতীয় শোক দিবসে একাত্তরের বাঘা সিদ্দিকীখ্যাত কাদেরিয়া বাহিনীর প্রধান ও ৭৫সালে বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিবাদে সশস্ত্র প্রতিরোধ যুদ্ধের নায়ক কাদের সিদ্দিকী বঙ্গবন্ধু ভবনে গিয়ে আছরের নামাজ পড়েন ও দোয়াদরুদ পড়েন। বঙ্গবন্ধুর কন্যাদের সাথেও তার দেখা হয়।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টায় তিনি গেলে তাকে গেটে দাঁড় করিয়ে নিরাপত্তারক্ষীরা ৩০মিনিট পর ভিতর থেকে এসে জানান তার ভিতরে যাবার অনুমতি নেই। তিনি তখন তার বাসায় চলে যান। সে সময় বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা টুঙ্গিপাড়ায় ছিলেন।

উল্লেখ্য, মুক্তিযুদ্ধের সময় কাদের সিদ্দিকী বাঘা সিদ্দিকী নামে পরিচিত ছিলেন। যুদ্ধ শেষ হলে তিনি তার বাহিনী নিয়ে বঙ্গবন্ধুর পায়ের কাছে অস্ত্র সমর্পণ করেন। মুক্তিযুদ্ধ-পূর্ব ও পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে যুক্ত থাকলেও ১৯৯৯ সালে তিনি আওয়ামী লীগ ত্যাগ করেন এবং কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ নামক রাজনৈতিক দল গঠন করেন।

সর্বশেষ ৩০ ডিসেম্বরের জাতীয় নির্বাচনের আগে ড. কামাল হোসেন নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যুক্ত হন। যদিও গত ৮ জুলাই ঐক্যফ্রন্ট ছেড়ে আসেন তিনি।



মন্তব্য চালু নেই