মেইন ম্যেনু

বঙ্গভবনে বসে ‘আয়নাবাজি’ দেখে উচ্ছ্বসিত রাষ্ট্রপতি

প্রায়শই পাশের দেশ ভারতে রাষ্ট্রপতি ভবনে বলিউডের কোনো আলোচিত সিনেমা ও তার কলাকুশলীসহ ওই সিনেমাটি দেখতে শোনা যায় রাষ্ট্রপতিকে। কিন্তু এমন ঘটনা কখনোই শোনা যায়নি বাংলাদেশে। কিন্তু এবার তেমন ঘটনাই ঘটিয়েছে মেধাবী নির্মাতা অমিতাভ রেজা চৌধুরীর পরিচালনায় দেশে বিদেশে আলোচিত ও প্রশংসিত সিনেমা ‘আয়নাবাজি’।

গত রোববার সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে ‘আয়নাবাজি’ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। এসময় সপরিবারে উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ। ছবিটি প্রদর্শনে নির্মাতা অমিতাভ রেজাকে টেকনিক্যালি সাপোর্ট দিয়েছে জাজ মাল্টিমিডিয়া। এমনটিই জানালেন নির্মাতা।

বঙ্গভবনে ‘আয়নাবাজি’র প্রদর্শনীতে কারা কারা ছিলেন, এবং ছবিটি দেখার পর কি বললেন রাষ্ট্রপতি, এমন প্রশ্ন করতেই নির্মাতা অমিতাভ রেজা বলেন, আয়নাবাজির প্রায় সবাই রাষ্ট্রপতি ভবনে ছিলাম। রাষ্ট্রপতি সিনেমা শেষ করেই ব্যাপক এক্সাইটমেন্ট দেখিয়েছেন। উনার মতো একজন মানুষের এমন উচ্ছ্বাসটা নির্মাতা হিসেবে ফিল করেছি। উনি আয়নাবাজির ব্যাপক প্রশংসা করেছেন।

সিনেমা দেখার পর বাংলা চলচ্চিত্র নিয়ে রাষ্ট্রপতি কিছু বলেছেন কিনা জানতে চাইলে নির্মাতা অমিতাভ রেজা আরো বলেন, হ্যাঁ। বাংলা সিনেমা নিয়ে কথা হয়েছে। এখন আগের চেয়ে তুলনামূলক ভালো সিনেমা হচ্ছে। আর রাষ্ট্রপতি বললেন, আয়নাবাজির মতো বাংলাদেশে আরো সিনেমা হওয়া উচিত।

অমিতাভ রেজা চৌধুরী ছাড়াও এসময় রাষ্ট্রপতি ভবনে উপস্থিত ছিলেন ‘আয়নাবাজি’ ছবির প্রযোজক জিয়াউদ্দিন আদিল, টম ক্রিয়েশনসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সালমা আদিল, ছবির পরিচালক আমিতাভ রেজা চৌধুরী, জাজ মাল্টিমিডিয়ার কর্ণধার আব্দুল আজিজ, নির্বাহী প্রযোজক এশা ইউসুফ, ছবির নায়ক চঞ্চল চৌধুরী, নায়িকা নাবিলা ও গাজী টিভির এমডি আমান আশরাফ ফায়েজ আর ‘আয়নাবাজি’ দলের কয়েকজন সদস্য।

অমিতাভ রেজার পরিচালনায় ‘আয়নাবাজি’ ছবিটি দেশের সিনেমা হলগুলোতে মুক্তির পর থেকেই এখনও জমজমাট। ব্যবসা সফল হওয়া ছাড়াও সব শ্রেণির দর্শকের কাছে বেশ প্রশংসিতও হয়েছে। ছবিতে কেন্দ্রীয় ‘আয়না’ চরিত্রে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী। এছাড়াও আছেন নাবিলা, পার্থ বড়ুয়া, লুৎফর রহমান জর্জ, গাউসুল আলম শাওন, এজাজ বাপ্পী, হীরা চৌধুরীসহ আরও অনেকে।



মন্তব্য চালু নেই