মেইন ম্যেনু

বনভোজনের অন্তরালে বাল্যবিয়ে!

মেহেরপুরের ভাটপাড়া ডিসি ইকো পার্কে প্রতিদিনই দর্শনার্থীদের আনাগোনা থাকে। চলে বনভোজনও। শনিবার সকাল থেকে সেখানে একটি বড় প্যান্ডেল করে রান্না চলছে। দেখলে মনে হবে বনভোজনের আয়োজন। কিন্তু না, এর অন্তরালে মিনতী খাতুন নামে এক নবম শ্রেণির ছাত্রীর বাল্যবিয়ের আয়োজন চলছে। অবশ্য এ বিষয়ে সত্যতা পেয়ে পদক্ষেপ গ্রহণের কথা জানালেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার।

জানা গেছে, গাংনী উপজেলার সীমান্তবর্তী গ্রাম হলো রংমহল। এ গ্রামের সৌদি প্রবাসী মিনারুল ইসলাম মিনুর মেয়ে মিনতী খাতুন তেঁতুলবাড়ীয়া ইসলামিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী। পার্শ্ববর্তী রামদেবপুর গ্রামের মালিপাড়ার শওকত আলীর ছেলে আলামিন হোসেনের সঙ্গে তার বিয়ে ঠিক হয়েছে। মিনতীর বাবার বাড়িতে আজ এ বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু প্রশাসনের বাধার মুখে পড়ে বিয়ে পণ্ড হয়ে যেতে পারে এমন আশঙ্কায় ওই বনভোজনের নাটক সাজিয়েছে কনে পক্ষের লোকজন। এমনটি জানিয়েছেন রংমহল গ্রামের অনেকেই।

ভাটপাড়া ডিসি ইকো পার্কে বাল্যবিয়ের দাওয়াতি লোকজন ও বরপক্ষের লোকজনের ভূরিভোজের রান্নার কাজে নিয়োজিত কয়েকজন বলেন, ‘বনভোজন না বিয়ের অনুষ্ঠান তা আমরা জানি না। রংমহল গ্রামের কয়েকজন আমাদেরকে রান্নার কাজে নিয়ে এসেছে। ৪ থেকে ৫শ লোকের খাওয়া-দাওয়ার আয়োজন করা হচ্ছে।’

এ বিষয়ে গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমান বলেন, ‘বিষয়টি আমি শুনেছি। এ বিষয়ে যথাযথ আইনি ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে স্কুলছাত্রীর বাল্যবিয়ে বন্ধ করা হবে।’



মন্তব্য চালু নেই