শিরোনাম:

বরফ-জমা শীতে মরক্কোর পাহাড়-চূড়ার গ্রাম

শীতে মরক্কোর তিমাহদিতে গ্রামের মানুষ বাইরের জগত বলতে গেলে ভুলেই যান। বরফাবৃত গ্রামে এখন সেখানে এমন শীত যে বাধ্য না হলে কেউ ঘরের বাইরে যেতে চান না।

মৌসুমের প্রথম তুষারপাতে ঢাকা পড়েছে ‘মাঠ’৷ খেলা আপাতত বন্ধ। তাই বরফে ঢাকা ফুসবল টেবিল নিয়ে সব সময় ব্যস্ত থাকে গ্রামের শিশুরা। বরফের ওপরে কাপড় শুকাতে হয়।

গ্রামের মানুষেরা মূলত আমাজিঘ উপজাতির। রুটি তাদের প্রধান খাবার।
উত্তর আফ্রিকা অঞ্চলের সবচেয়ে উঁচু পাহাড় অ্যাটলাসের ওপরের এই গ্রামটিতে শীতের সময় সব তৃণভোজী প্রাণীর প্রাণ বাঁচানোই মুশকিল। ঘাস, গাছ সব ঢেকে যায় বরফে।তৃণভোজীরা খাবে কী! এক পাল ভেড়ার আহারের সন্ধানে তাই বরফ-রাজ্য চষে বেড়ান গ্রামবাসী।

শীতে তো ফসল ফলানোর উপায় থাকেই না, গ্রীষ্মেও খরার কারণে বিপদে পড়েন কৃষিজীবীরা। তাই অনেকেই দিন গোণেন আর ভাবেন, কবে আবার বর্ষা আসবে, বৃষ্টি হবে, বাঁধে পানি জমিয়ে শবজি আর ফল চাষ শুরু করা যাবে। শীতে সোলার প্যানেলের আলো স্কুলের পড়া ও রুম হিটারের কাজ করে।

সূত্র: ডয়েচে ভেলে।