শিরোনাম:

বাংলাদেশে মসজিদ নির্মাণে সৌদি সহায়তা নিয়ে ধোঁয়াশা!

বাংলাদেশে পাঁচ শতাধিক মসজিদ নির্মাণে সৌদি সহায়তার খবর নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে। সম্প্রতি ৫ ভাষার এশিয়া ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম বেনার নিউজে প্রকাশিত এক খবরে বলা হয়, সৌদি আরব ৫৬০টি মসজিদ নির্মাণে বাংলাদেশকে ১০০ কোটি মার্কিন ডলার সহায়তা দেওয়ার অঙ্গীকার করেছে। আর এই অঙ্গীকারের দাবি নাকচ করেছেন সৌদি সংস্কৃতি ও তথ্যবিষয়ক মন্ত্রী ড. আওয়াদ আলাওয়াদ। তবে বাংলাদেশের পরিকল্পনামন্ত্রী মোস্তফা কামাল বলেছেন, ওই অর্থ পাওয়ার ব্যাপারে সৌদি বাদশা’র সঙ্গে কথা হয়েছে।

গত ২১ এপ্রিল বেনার নিউজে বাংলাদেশে মসজিদ নির্মাণে সৌদি অর্থ সহায়তার পরিকল্পনার কথা প্রথম প্রকাশিত হয়। ২৬ এপ্রিল এক সৌদি কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপিও একই খবর জানায়। প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশে প্রত্যেক শহরে একটি করে মোট ৫৬০টি মসজিদ নির্মাণের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে সরকার। আর এই প্রকল্পে খরচ হতে যাওয়া ১০৭ কোটি ডলারের সিংহভাগ অর্থাৎ ১০০ কোটি মার্কিন ডলার সহায়তা দেবে সৌদি আরব।

পরিকল্পনামন্ত্রী মোস্তফা কামালকে উদ্ধৃত করে ওই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, গত বছর সৌদি আরব সফরের সময় দেশটির সরকারের কাছে এই সহায়তা চেয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সবশেষ বুধবার (১০ মে) ফক্স নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ওই ধরনের অর্থায়নের খবর অস্বীকার করেন সৌদি আরবের সংস্কৃতি ও তথ্যবিষয়ক মন্ত্রী ড. আওয়াদ আলাওয়াদ। তিনি বলেন, ‘এটি একেবারেই সত্য নয়।

সৌদি আরব বাংলাদেশকে কখনও মসজিদ নির্মাণে ১০০ কোটি ডলার অর্থ সহায়তা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়নি। কোনও দেশের সরকারের কাছ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে অনুরোধ পেলে তখনই কেবল সৌদি সরকার এ ধরনের প্রতিশ্রুতিতে যাওয়ার কথা বিবেচনা করে। যখন এ ধরনের কোনও চুক্তি চূড়ান্ত হয় তখন অবশ্যই দুই দেশ থেকে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়া হয়ে থাকে।’

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে পরিকল্পনা মন্ত্রী মোস্তফা কামাল বলেন, ‘চুক্তিটি সৌদি বাদশা’র সঙ্গে হয়েছে। হয়তো বাদশা মন্ত্রীকে বিষয়টি অবহিত করেননি।’