মেইন ম্যেনু

বাপ্পারাজকে নিয়ে শিগগির সিদ্ধান্ত নিবে সমিতি

পরিচালক সমিতিকে হেয় করে একটি দৈনিকে সাক্ষাৎকার দিয়ে ফেঁসে যান জনপ্রিয় অভিনেতা নির্মাতা বাপ্পারাজ। সমিতিকে হেয় করায় তার বিরুদ্ধে গেল ১৪ মে নোটিশও পাঠায় সমিতি। সেখানে বাপ্পারাজকে সাত দিনের সময় বেধে দেয়া হয়। এরমধ্যে উচিত জবাব দিতে না পারলে তার বিরুদ্ধে নোটিশে শক্ত ব্যবস্থা নেয়ারও হুমকি দেয়া হয়।

গত ২১ মে শেষ হয়েছে বাপ্পারাজের বিরুদ্ধে পরিচালক সমিতির বেঁধে দেয়া সাত দিনের সময়। এই সময়ের ভেতরে বাপ্পারাজ তার জবানিতে কি বলেছেন, এবং পরিচালক সমিতিকে মনোপূত জবাব দিতে না পারলে তার বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নেয়া হবে এসব জানতে চাওয়া হয় পরিচালক সমিতির সভাপতি গুলজার আহমেদের কাছে।

মঙ্গলবার দুপুরে এফডিসিতে পরিচালক সমিতির এক সংবাদ সম্মেলনে গুলজার আহমেদের কাছে জানতে চাওয়া হয় যে, বাপ্পারাজকে বেধে দেয়া সময় সীমাতো শেষ। এখন তার বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নিচ্ছে সমিতি এমন প্রশ্নে গুলজার আহমেদ বলেন, ২৫ মের পরে আমরা আবার সভা ডাকবো। সেখানেই আমরা সবাই বসে বাপ্পারাজের বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত নিবো। এটাতো কারো ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত নয়। সমিতির সিদ্ধান্ত।

সাম্প্রতিক বেশকিছু সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্নের সম্মুখিন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি। সদ্য এই সমিতির হাতে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন সুপারস্টার শাকিব খান। পরবর্তীতে কোনোরকমে ক্ষমা চেয়ে তার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয়। কিন্তু শাকিবের কারণে এখন পর্যন্ত শাস্তির খড়গ মাথায় নিয়ে ঘুরছেন বহিষ্কারাদেশ পাওয়া ‘রংবাজ’ নির্মাতা শামীম আহমেদ রনি। পরিচালক সমিতি কর্তৃক শাস্তি পাওয়াদের দলে সর্বশেষ ব্যক্তি হিসেবে আছেন অভিনেতা ও নির্মাতা বাপ্পারাজ। দেখা যাক, তার বিরুদ্ধে কী ধরনের ব্যবস্থা নেয় সমিতি।



মন্তব্য চালু নেই