‘বিনা টাকায় টিকা প্রদান কার্যক্রম একটি ঐতিহাসিক ঘটনা’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিনা টাকায় টিকা প্রদান কার্যক্রম একটি ঐতিহাসিক ঘটনা বলে উল্লেখ করেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী গরীব-দুখী মানুষের দিকে লক্ষ্য রেখে প্রত্যেককে বিনা টাকায় টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন।

টিকার জন্য কাউকে টাকা দিতে হচ্ছে না। কিন্তু পৃথিবীর খুব কম দেশেই ফ্রিতে করোনার টিকা দেওয়া হয়। তাই প্রধানমন্ত্রীর বিনা টাকায় টিকা প্রদান কার্যক্রম একটি ঐতিহাসিক ঘটনা বলে জানান তোফায়েল আহমেদ।

রোববার (১৮ জুলাই) সদর উপজেলার কাচিয়া ইউনিয়নে ঈদুল আজহা উপলক্ষে করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার নগদ অর্থ সহায়তা ও ভিজিএফ চাল বিতরণ অনুষ্ঠানে ঢাকা থেকে টেলিকনফারেন্সে যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। খবর বাসসের

তিনি বলেন, করোনাকালীন সময়ে প্রধানমন্ত্রীর নেয়া পদক্ষেপগুলো শুধু দেশেই নয়, দেশের বাইরেও প্রশংসিত হয়েছে।

তোফায়েল বলেন, শনিবার (১৭ জুলাই) চীন থেকে ২০ লাখ ডোজ করোনার টিকা এসেছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে টিকা আসছে। ভারত থেকে টিকা এসেছে। তাই প্রধানমন্ত্রীর টিকা প্রদান কর্মসূচি বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে প্রশংসা পেয়েছে। আমাদের বাজেটে টিকার জন্য অনেক টাকা বরাদ্দ রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রীর কারণেই, বাংলাদেশ আজ পৃথিবীর মধ্যে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে পরিচয় লাভ করেছে।

আগামীদিনে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে করোনা মহামারী থেকে বাংলাদেশ রক্ষা করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম নকিবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন- জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল মমিন টুলু, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মোশারেফ হোসেন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. ইউনুছ, জেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব। পরে রাজাপুর, ইলিশা, শিবপুরসহ মোট ৬টি ইউনিয়নে অসহায় মানুষের মাঝে নগদ অর্থ ও চাল বিতরণ করা হয়।



মন্তব্য চালু নেই