মেইন ম্যেনু

বিপদসীমার ১৫ সেন্টিমিটার উপরে যমুনার পানি

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল আর গত কয়েক দিনের টানা বর্ষণে সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে (সিরাজগঞ্জ শহর রক্ষা বাঁধ এলাকায়) বিপদসীমার ১৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। প্রতিদিন পানি বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে নিম্নাঞ্চলের নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হতে শুরু করেছে।

শুক্রবার দুপুর ১২টা থেকে শনিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত যমুনা নদীর পানি ১৪ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ১৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

পানি বৃদ্ধির ফলে জেলার কাজিপুর, শাহজাদপুর, চৌহালী, বেলকুচি এবং সদর উপজেলার ৫টি উপজেলার ২৮টি ইউনিয়নের চরাঞ্চল প্লাবিত হচ্ছে। বন্যা কবলিত মানুষ বাড়ি ঘর ছেড়ে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে আশ্রয় নিয়েছেন।

এদিকে যমুনা নদীর সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার খোকশাবাড়ি এলাকায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ২০০৭ সালে ভেঙে যাওয়ার পর সংস্কার না করায় ভাঙা অংশ দিয়ে পানি ঢুকে রানীগ্রাম ও গুনেরগাতী এলাকা বন্যা কবলিত হয়ে পড়েছে। বন্যা কবলিত মানুষ বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিচ্ছে।

সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী হাসান ইমাম বলেন, বর্তমানে যমুনা নদীর পানি বিপদসীমার ১৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। আগামী ৫-৭ দিন যমুনা নদীতে আরও পানি বৃদ্ধি পাবে। শহর রক্ষা বাঁধগুলো যাতে ভেঙে না যায়- এজন্য নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। ভাঙনরোধে বাঁধের ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় বালির বস্তা ফেলা হচ্ছে।



মন্তব্য চালু নেই