বিশ্ব জুড়ে মৃত্যু সংখ্যা ৪ লাখ ৩০ হাজার ছাড়াল

বিক্ষিপ্তভাবে কয়েকটি দেশ করোনার গতি কিছুটা নিয়ন্ত্রনে আনতে পারলেও এখনও সুখবর নেই সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর থেকে। ইতোমধ্যেই ভাইরাসটি বিশ্বের ৪ লাখ ৩০ হাজার ১১৯ জন মানুষের প্রাণ কেড়েছে। আক্রান্ত ৭৮ লাখ ৮ হাজার ৮৬৭ জন।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড আক্রান্তের ঘটনা ঘটেছে। করোনায় সবচেয়ে ভুক্তভোগী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, লাতিন আমেরিকার ব্রাজিল ও দক্ষিণ এশিয়ার ভারত। যদিও বেঁচে ফিরেছেন আক্রান্তদের অর্ধেকই।

শনিবার বাংলাদেশ সময় রাত ১১টা পর্যন্ত বিশ্বখ্যাত জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের তালিকায় যুক্ত হয়েছে বিশ্বের ১ লাখ ৫০ হাজার। এতে করে সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে আক্রান্ত ৭৮ লাখ ৮ হাজার ৮৬৭ জনে দাঁড়িয়েছে। প্রাণ গেছে আরও প্রায় ৫ হাজার জনের। নিয়ে বিশ্বব্যাপী মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪ লাখ ৩০ হাজার ১১৯ জন। আর সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৪০ লাখ ৬ হাজার ৩৭৪ জন মানুষ।

এর মধ্যে শুধু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেই আক্রান্তের সংখ্যা ২১ লাখ ২৯ হাজার ৫৭২ জনে দাঁড়িয়েছে। প্রাণহানি ঘটেছে ১ লাখ ১৭ হাজার ৯৬ জন মানুষের।

দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংক্রমণ ও প্রাণহানির দেশ ব্রাজিলে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৮ লাখ ৩১ হাজার ১২৯ জনে দাঁড়িয়েছে। না ফেরার দেশে ৪১ হাজার ৯৫২ জন।

আক্রান্তের তালিকায় তিনে থাকা রাশিয়ায় সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে ৫ লাখ ২০ হাজার ১২৯ জনে পৌঁছেছে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৬ হাজার ৮২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে করোনায়।

যুক্তরাজ্যে সংক্রমণ ২ লাখ ৯৪ হাজার অতিক্রম করেছে। মৃতের সংখ্যা সাড়ে ৪১ হাজার ৬৬২ জনে দাঁড়িয়েছে।

নিয়ন্ত্রণে আসা স্পেনে করোনার ভুক্তভোগী ২ লাখ প্রায় ৯০ হাজার ৬৮৫ জন মানুষ। এর মধ্যে প্রাণহানি ঘটেছে ২৭ হাজার ১৩৬ জনের। টানা চতুর্থ দিন মৃত্যু শূন্য দেশটি।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভারত আক্রান্তে যুক্তরাজ্যকে ছাড়িয়ে চারে উঠেছে। আক্রান্ত ৩ লাখ ছাড়িয়েছে। প্রাণহানি ঘটেছে সেখানে ৯ হাজার ২০৫ জনের। ইউরোপে প্রথম আঘাত হানা ইতালিতে ২ লাখ ৩৬ হাজার ৬৫১ জন মানুষ করোনার শিকার। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৩৪ হাজার ৩০১ জনের।

আক্রান্ত ২ লাখ ২১ হাজার ছুঁই ছুঁই লাতিন আমেরিকার দেশ পেরুতে। মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজার ৩০৮ জনের। চিলিতে ১ লাখ ৬০ হাজার ছাড়িয়েছে। যেখানে মৃত্যু ৩ হাজার ১০১ জনে ঠেকেছে।

মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে লাতিন আমেরিকার আরেক দেশ মেক্সিকো। যেখানে আক্রান্ত ১ লাখ ৩৯ হাজার ছাড়িয়েছে। প্রাণহানি ঘটেছে এখন পর্যন্ত ১৬ হাজার ৪৪৮ জনের।

প্রাণহানি কম ও সুস্থতার হার বেশি হলেও সংক্রমণ লাখ ছাড়িয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের ইসলামি প্রজাতান্ত্রিক দেশ সৌদি আরবে। এখন পর্যন্ত দেশটিতে বসবাসরত ১ লাখ ২৩ হাজার ৩০৮ জন মানুষের দেহে চিহ্নিত হয়েছে করোনা। যেখানে প্রাণ গেছে ৯৩২ জনের।

এদিকে, দক্ষিণ এশিয়ার আরেক দেশ পাকিস্তানেও হু হু করে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। যেখানে আক্রান্ত ১ লাখ ৩০ হাজার ছাড়িয়েছে। প্রাণহানি ২ হাজার ৫০০ জনের উপরে।

এ অঞ্চলের আরেক ভুক্তভোগী বাংলাদেশে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দেয়া তথ্যমতে শনিবার পর্যন্ত করোনার শিকার ৮৪ হাজার ৩৭৯ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ১৩৯ জনের। আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ১৭ হাজার ৮২৮ জন।



মন্তব্য চালু নেই