ভারতে পাচার তিন কিশোরী ২ বছর পর ফিরলো বেনাপোল দিয়ে

প্রতিবেশী ও স্বজনদের মাধ্যমে ভারতে পাচারের শিকার তিন কিশোরীকে উদ্ধারের দুই বছর পর ফেরত পাঠিয়েছে ভারতীয় পুলিশ।
এদিকে ফেরত আসা কিশোরীদের যশোরের বেনাপোল থেকে জাস্টিস এন্ড কেয়ার নামে একটি এনজিও সংস্থা গ্রহণ করেছে পরিবারে কাছে পৌঁছে দিতে।

শুক্রবার (০১ জানুয়ারি) বিকেলে ৫টায় তাদেরকে ট্রাভেল পারমিটে ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।
এসময় এক আবেগ ঘন পরিবেশ তৈরি হয়। কিশোরীদের ফিরে পেয়ে স্নেহের মায়ায় জড়িয়ে ধরেন বাবা-মা।

ফেরত কিশোরীরা হলেন- যশোরের মুসলিমা খাতুন (১৭), ভোলার শিল্পী আক্তার পাখি ( ১৮) ও বাগেরহাটের রাবেয়া খাতুন (১৬)।

কিশোরীদের গ্রহণকারী জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের যশোর শাখার প্রোগ্রামার অফিসার এ বি এম মুহিত জানান, ভুক্তভোগী কিশোরীদের কাউকে নায়িকা বানানো, আবার কাউকে ভালো কাজ আবার কাউকে বেড়ানোর কথা বলে আত্মীয়রা ভারতে নেয়। পরে প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করে ইচ্ছার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ঝুঁকিমূলক কাজে ব্যবহার করে। এসময় পুলিশ খবর পেয়ে তাদের উদ্ধার করে। পরে ভারতের মুম্বায়ের একটি বেসরকারি এনজিও সংস্থা তাদেরকে ছাড়িয়ে নিয়ে মুসলিমা খাতুনকে দুই বছর, রাবেয়া খাতুনকে দুই মাস ও শিল্পী আক্তার পাখিকে এক বছর নিজেদের শেল্টার হোমে রাখে।

এরপর দুই দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি চালাচালির মাধ্যমে এদেরকে ট্রাভেল পারমিটের আজ বিকেলে তাদেরকে দেশে ফেরত পাঠিয়েছে ভারত সরকার। পাচারকারীদের বিরুদ্ধে আইনি সহায়তায় সব ধরনের সহযোগিতা করবে জাস্টিস এন্ড কেয়ার।

বেনাপোল ইমিগ্রেশন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহসান হাবিব জানান, ফেরত আসা তিন নরীকে ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে আমাদের কাছে হস্তান্তর করেছে। কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাদেরকে জাস্টিস এন্ড কেয়ার নামে একটি এনজিও সংস্থা গ্রহণ করেছে। পরবর্তীতে এনজিও সংস্থা তাদের পরিবারে কাছে হস্তান্তর করবে বলেও তিনি জানান।



মন্তব্য চালু নেই