ভারতে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা

ভারতে চলছে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ। দেশটিতে গত ২৪ মার্চ একদিনে আক্রান্ত শনাক্ত হয় ৫০ হাজার মানুষ। আর গতকাল শনিবার একদিনে আক্রান্তের হার ছিল দুই লাখ ৬০ হাজারেরও বেশি। অর্থাৎ পঁচিশ দিনে সংক্রমণ বেড়েছে দুই লাখেরও বেশি।

সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান বলছে- দেশটিতে গত মার্চের ২৪ তারিখে আক্রান্ত হয় ৫০ হাজার। ছয়দিনে (এপ্রিলের ১০ তারিখ) এই আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ায় এক লাখে, ১১ দিনে (এপ্রিল এর ৪ তারিখ) সংক্রমণ পৌঁছায় দেড় লাখে। আরও চার দিনে (এপ্রিলের ১৪ তারিখে) দুই লাখে এবং গতকাল শনিবার সংক্রমণ পৌঁছেছে দুই লাখ ৬০ হাজার ৮১০।

এমন পরিস্থিতিতে গতকাল শনিবার দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, এই অবস্থায় দেশকে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে ভ্যাকসিন উৎপাদনে। তিনি জানান, দেশের ১২ কোটি ২৫ লাখ মানুষ এখন ভ্যাকসিনের আওতায় এসেছে। এর মধ্যে এক কোটি ৬১ হাজার লোক দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছে।

ভ্যাকসিন নির্মাতা সংস্থা সিরাম ইনস্টিটিউট এবং ভারত বায়োটেককে উৎপাদন বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। এ ছাড়াও কঠোর বিধিনিষেধ আরোপেরও নির্দেশ তিনি দিয়েছেন তিনি। এ ছাড়া রেলের কামড়ায় বা স্টেশন চত্বরে বিনা মাস্কে কেউ থাকলেই তাকে পাঁচশো টাকা জরিমানা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলেও জানান দেশটির প্রধানমন্ত্রী।



মন্তব্য চালু নেই