মেইন ম্যেনু

মনোবল বাড়াতে সীমান্তে সেনাদের সঙ্গে দেখা করলেন ইমরান

কাশ্মীর নিয়ে উত্তেজনার মধ্যে পাকিস্তান সীমান্তের নিয়ন্ত্রণ রেখায় গিয়ে সেনাবাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে দেখা করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

এ সময় তার সঙ্গে পাক সেনাবাহিনীর প্রধানসহ ঊর্ধ্বতন সেনা কর্মকর্তারা ছিলেন।

পাক অধিকৃত কাশ্মীর সীমান্তের বাঘ এবং কোটলি সেক্টর ঘেঁষে প্রায় ২ হাজার পাক সেনা সদস্যের উপস্থিতিকে গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে বলে বৃহস্পতিবার অভিযোগ করেছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। এর পরদিন সীমান্তে গিয়ে সেনাদের সঙ্গে দেখা করলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ও সেনাপ্রধান।

শুক্রবার পাক আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ অধিদফতরের (আইএসপিআর) এক বিবৃতিতে বলা হয়, শুক্রবার শহীদ এবং প্রতিরক্ষা দিবস উদযাপন উপলক্ষে সীমান্তে গিয়ে সেনাবাহিনীর সদস্য ও সীমান্তে নিহত সেনাসদস্যদের পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

সীমান্তের এ সফরে ইমরান খানের সঙ্গে ছিলেন সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া।

পাক আইএসপিআরের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সেনাপ্রধান ছাড়াও প্রতিরক্ষামন্ত্রী পারভেজ খাট্টাক, পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি ও কাশ্মীরবিষয়ক বিশেষ কমিটির চেয়ারম্যান সৈয়দ ফখর ইমাম প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এবং সেনাপ্রধান বাজওয়া সীমান্তে কর্তব্যরত সেনা ও নিহত সেনাদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

শুক্রবার পাকিস্তানে জাতীয় প্রতিরক্ষা ও শহীদ দিবস পালিত হয়েছে। এ বছরের এই দিবসকে কাশ্মীরের প্রতি সংহতি জানিয়ে উদযাপন করছে পাকিস্তান।

উল্লেখ্য, গত ৫ আগস্ট ভারতীয় সংবিধান থেকে জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা সংক্রান্ত ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের পর প্রতিবেশি ভারতের সঙ্গে পাকিস্তানের তীব্র উত্তেজনা শুরু হয়। কাশ্মীরের মর্যাদা বাতিলের ঘটনায় দুই দেশের নিরাপত্তা রক্ষী বাহিনীর সদস্যদের গুলি-পাল্টা গুলিতে উভয় দেশের বেশ কয়েকজন সৈন্যের প্রাণহানি ঘটে।

পাক আইএসপিআর বলছে, নিয়ন্ত্রণ রেখা থেকে আজাদ জম্মু-কাশ্মীরের বেসামরিক নাগরিকদের লক্ষ্য করে ভারতীয় বাহিনী ক্লাস্টার যুদ্ধসামগ্রী ব্যবহার করছে; এটি জেনেভা কনভেনশন ও আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন।

বৃহস্পতিবার পাক অধিকৃত কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণ রেখার একেবারে কাছে অন্তত এক ব্রিগেড সেনা সদস্য জমায়েত করেছে পাকিস্তান সেনাবাহিনী।



মন্তব্য চালু নেই