শিরোনাম:

মামুনুল হককে নিয়ে একের পর এক অডিও ফাঁস, হচ্ছে ভাইরাল

হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক নারায়ণগঞ্জে অবরুদ্ধ হওয়ার পর থেকে একের পর এক তার কণ্ঠের মত অডিও ফাঁস হচ্ছে। এসব অডিও ইতোমধ্যে সামাজিকমাধ্যম ইউটিউব ও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

শনিবার (০৩ এপ্রিল) বিডি পলিটিকো নামে একটি ইউটিউব চ্যানেলে একাধিক অডিও ফাঁস করা হয়েছে। বিকেলে একটি অডিও ফাঁস করে সেটিকে মামুনুল হক ও তার স্ত্রীর কথোপকথন বলে দাবি করা হয়।

রাতে আরও একটি অডিও ফাঁস করা হয়। সেটিকে মামুনুল হক ও রিসোর্টে অবরুদ্ধ নারীর কথোপকথন বলে দাবি করা হয়।

দ্বিতীয় অডিওটি ২ মিনিট ১৯ সেকেন্ডের। ওই অডিওতে মামুনুল হকের মতো পুরুষ কণ্ঠে ও অপর প্রান্তের নারী কণ্ঠের কথোপকথন তুলে ধরা হলো।

পুরুষ: ওয়ালাইকুমুস সালাম ওয়া রহমতুল্লাহ। কি অবস্থা, ঝামেলা হয় নাকি? এ্যা?

নারী: না, বলেন।

পুরুষ: কথা এমনে কইতেছো ক্যা, মনে হয় ঘুমায়ে ঘুমায়ে কথা বলতেছো।

নারী: হা হা হা। ঘুমায়ে ঘুমায়ে কথা কইতাছি না ক্লাস নিতাছি।

পুরুষ: ক্লাসে আছো?

নারী: হুম।

পুরুষ: ক্লাসে আছো তা কি হইছে? ক্লাসে থাকলে কি প্রাণ খুলে কথা কওন যায় না?

নারী: (এরপর নারীর কথাটা অস্পষ্ট শোনা গেছে)

পুরুষ: কি হইছে?

নারী: আপনি একটু অফিসে বসেন আসতাছি।

পুরুষ: কেন অফিসে বসমু আমি?

নারী: (অস্পষ্ট)

পুরুষ: আমি অফিসে বসমু না আমি এখনই কথা বলমু। এবং যা ইচ্ছা তাই বলমু।

নারী: বাড়াবাড়ি তো বেশি করতেছেন আপনি।

পুরুষ: কি বাড়াবাড়ি কি করছি আবার? কথা বলতে চাইছি, কথা বলা, বাক স্বাধীনতা মানুষের অধিকার।

নারী: (কিছুটা অস্পষ্ট) অধিকার তো আমার টাও আপনি হরণ করছেন। (কিছুটা অস্পষ্ট) পুলাপাইনদের সামনে অনেক ‍কিছু কইতে পারতাছি না।

পুরুষ: হা হা হা (দীর্ঘ হাসি) কি?

নারী: মজা নিতাছেন?

পুরুষ: হা হা হা (আবার দীর্ঘ হাসি)

নারী: আর বলার নাই, যত খুশি হাসেন।

পুরুষ: কি? হা হা হা (পুনরায় হাসি)

পুরুষ: এটা ঠিক না। এটা ঠিক না। একজনকে লাইনে রাইখ্যা আরেকজনের সঙ্গে কথা বলাটা ঠিক না। এটা ভদ্রতা পরিপন্থী কাজ।

নারী: দুইটা মিনিট বসেন আমি আসতাছি।

পুরুষ: দুইটা মিনিট বসেন আমি আসতাছি। আমি কথা বলতাছি আবার বসতে বলে!

নারী: কন আপনি কন। দুই বারই কন। (অস্পষ্ট) পরীক্ষা চলে তো। থাকতে পারি নি। বুঝছেন?

পুরুষ: হুম।

নারী: পুরা মাদ্রাসায় যাইতে হয়। দৌড়াইতে দৌড়াইতে এদিক দিয়ে নিজের ক্লাস আছে। টেনশনে আমি।

পুরুষ: আচ্ছা, এখন কি অবস্থা। মানে ফ্রি নাকি, উনারা তো আছে, না চলে গেছে?

নারী: দুলাভাই আসকে সকালে বিদায় নিছে। আপা আছে।

পুরুষ: এখন উনারা তো থাকবে, নাহ?

নারী: হুমম।

পুরুষ: উনাদের রেইখ্যে তো কোনদিকে যাওয়া যাইবো না।

নারী: (অস্পষ্ট) মনে হয়তাছে এতো ঝামেলার মধ্যে এতো রস আহে কোত্থেকে মিয়া?

পুরুষ: যেটা জিজ্ঞেস করছি সেটা বলো?

নারী: খাওয়া দাওয়া হইবো। সেদিনক্যা তো আসলেন না।

পুরুষ: অ্যা?

নারী: (অস্পষ্ট)

পুরুষ: রিয়েলি, ফাইনাল কিন্তু?

নারী: তাই না?

পুরুষ: হ্যা।

নারী: আচ্ছা পরে জানাইতেছি আপনারে। কবে? কোনদিন? কখন?

পুরুষ: বিকালে, সন্ধ্যায়।

নারী: (অস্পষ্ট)

এর আগে, শনিবার বিকেলে সোনারগাঁওয়ের রয়েল রিসোর্টের ৫০১ নম্বর কক্ষে নারীসহ মামুনুল হককে অবরুদ্ধ করে স্থানীয়রা। পরে তাকে উদ্ধার করে পুলিশ। সেই সঙ্গে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সঙ্গে থাকা ওই নারীকে দ্বিতীয় স্ত্রী বলে দাবি করেন মামুনুল হক।



মন্তব্য চালু নেই