শিরোনাম:

মুখে বিষ ঢেলে স্ত্রী হত্যার অভিযোগ দিহানের ভাইয়ের বিরুদ্ধে

রাজধানীর কলাবাগানে শিক্ষার্থীর ধর্ষণ ও হত্যায় অভিযুক্ত দিহান বড় ভাই সুপ্তর বিরুদ্ধেও রয়েছে স্ত্রী হত্যার অভিযোগ। রাজশাহীতে হতদরিদ্র এক পরিবারের মেয়ের সঙ্গে প্রেম করে বিয়ে করলেও মুখে বিষ ঢেলে সে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ আছে দিহানের বড় ভাই সুপ্তর বিরুদ্ধে। পরিবারটির আগ্রাসী আচরণে এখনো ভীত নিহতের পরিবার।

পরিচিতরা বলছেন, ২০১১ সালে বড় ভাই সুপ্ত রাজশাহী নগরীর হোসেনীগঞ্জের দরিদ্র পরিবারের মেয়ে রুনা খাতুন নুন্নিকে বিয়ের পর অত্যাচার করে মুখে বিষ ঢেলে হত্যা করে বলে অভিযোগ রয়েছে। সে সময় এর বিরুদ্ধে নারী নেত্রীরা আন্দোলন করলেও সাব-রেজিস্ট্রার বাবা আব্দুর রউফ সরকার টাকার বিনিময়ে ঘটনাটা ধামাচাপা দেন।
লিজা খাতুন নামে এক নারী নেত্রী বলনে, ‘সুপ্ত এবং দিহানের বাবা তো টাকাওয়ালা, প্রভাবশালী ও এদের ফ্যামিলি ক্যারেক্টারটাই এ রকম টাইপের। মা-ও ভীষণ দুর্ধর্ষ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে, প্রায় ভীতভাবেই ৯ বছর আগে নিহত রুনা খাতুন নুন্নির হত্যার ঘটনা স্বীকার করেন তার স্বজনরা।
নিহত রুনার মা বলেন, ‘আমার মেয়েকে সুপ্ত বিষ খাওয়াই মেরে ফেলেছে।’
গত কয়েক দিন আগে সুপ্তর ছোট ভাই রাজধানীতে এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের পর মৃত্যুর খবরে ক্ষোভে ফেটে পড়েন তাদের পরিচিতরা।

এক এলাকাবাসী বলেন, ‘ওদের ফ্যামিলিটা এ রকমই। ওরা টাকার জোরে এ রকম করে। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

অভিযুক্ত দিহান ও সুপ্তর বাবার প্রশ্রয়ে অপরাধের সীমা ছাড়িয়েছে বলে জানায় তাদের গ্রামের বাড়ি দুর্গাপুরের লোকজন।



মন্তব্য চালু নেই