প্রধান ম্যেনু

ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের যোগ্যতা এসএসসি করার সুপারিশ

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের শিক্ষাগত যোগ্যতা এসএসসি এবং গভর্নিং বডির সদস্যদের শিক্ষাগত যোগ্যতা এইচএসসি করার সুপারিশ করেছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড। এছাড়া বিদ্যোৎসাহী সদস্যদের শিক্ষাগত যোগ্যতা মাস্টার্স ডিগ্রি করার কথা বলা হয়েছে। মঙ্গলবার (২ জুলাই) শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এই সুপারিশ উপস্থাপন করা হয়।

সূত্র জানায়, আগের বৈঠকের আলোচনার প্রেক্ষিতে ম্যানেজিং কমিটির সদস্য নির্বাচনে শিক্ষাগত যোগ্যতা নির্ধারণে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড এই সুপারিশ করে। শিক্ষা বোর্ডের সুপারিশে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য হতে শিক্ষাগত যোগ্যতা নূন্যতম এসএসসি পাস থাকা এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আওতাভুক্ত কলেজের গভর্নিং বডির সদস্যদের ক্ষেত্রে অভিভাবক প্রতিনিধি ন্যূনতম এইচএসসি ও বিদ্যোৎসাহী সদস্যের ক্ষেত্রে মাস্টার্স ডিগ্রি থাকার বিধান করার কথা বলা হয়।

উল্লেখ্য, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (এমপিওভুক্ত) পরিচালনা কমিটি গঠনে নতুন খসড়া নীতিমালা তৈরি করছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি। এ লক্ষ্যে মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে একটি উপ কমিটি গঠন করা হয়েছে। উপ কমিটিকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা কমিটির নীতিমালা তৈরিতে প্রয়োজনীয় সুপারিশ সম্বলিত রিপোর্ট প্রদানের নির্দেশনা দেয়া হয়।

এর আগে গত ২ মে অনুষ্ঠিত কমিটির পূর্ববর্তী বৈঠকে ম্যানিজং কমিটির সদস্যদের শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকা নিয়ে বির্তক হয়। ওই বৈঠকে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল কমিটির সদস্যদের নূন্যতম যোগ্যতা নির্ধারণ করার কথা বলেন। তার বক্তব্যে দু‘একজন সদস্য একমত হলেও শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি ও ফজলে হোসেন বাদশা বিরোধিতা করেন। তাদের যুক্তি একজন সংসদ সদস্য নির্বাচনের জন্য যেখানে শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে কথা ওঠে না সেখানে এই পদে কেন এই প্রশ্ন আসবে? পরে বিষয়টি নিয়ে সংসদের বৈঠকেও প্রশ্ন ওঠে।

প্রসঙ্গত: সর্বশেষ ২০০৯ সালে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটি গভর্নিং বডি সংক্রান্ত প্রবিধান ২০০৯ সালে জারি হয়। পরে উচ্চ আদালতে এক নির্দেশের প্রেক্ষিতে পদাধিকার বলে সংসদ সদস্যদের এক বা একাধিক প্রতিষ্ঠানের কমিটির সভাপতি থাকার বিধানসহ কিছু ধারা বাতিল করা হয়।

মঙ্গলবারের বৈঠকে মাদরাসা শিক্ষাকে আরো আধুনিক ও যুগোপুযোগী করতে এবং মাদ্রাসা ছাত্রছাত্রীদেরকে ধর্মীয় শিক্ষার পাশাপাশি সাধারণ শিক্ষা কারিকুলামের আওতায় আনার মাধ্যমে চাকুরিতে সমান সুযোগ প্রদানের লক্ষ্যে মাদ্রাসা অধিদপ্তর ও মাদ্রাসা বোর্ডকে পদক্ষেপ গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।

দেশের যে কোন ধরণের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও কোচিং সেন্টার স্থাপনের আগে সরকারের বিধি বিধান যথাযথ অনুসরণের মাধ্যমে সরকারের পূর্বানুমোদন নিশ্চিত করার জন্য কমিটি সুপারিশ করে।

কমিটির সভাপতি মোঃ আফছারুল আমীনের সভাপতিত্বে সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত বৈঠকে কমিটির সদস্য শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, মোঃ আব্দুল কুদ্দুস, এ. কে. এম শাহাজান কামাল, ফজলে হোসেন বাদশা, মোঃ আবদুস সোবহান মিয়া, এম এ মতিন এবং গোলাম কিবরিয়া টিপু অংশগ্রহণ করেন।

উল্লেখ্য, স্নাতক (পাস) ও অনার্স-মাস্টার্স কলেজের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান হবার ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা ডিগ্রি পাস নির্ধারণ করা আছে। ২০১৫ খ্রিষ্টাব্দে এই শিক্ষাগত যোগ্যতা নির্ধারণ করা হয়। তবে বেসরকারি স্কুল, উচ্চ মাধ্যমিক কলেজ বা মাদরাসার ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি বা অন্য সদস্য হতে কোনো ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা নির্ধারিত নেই।



মন্তব্য চালু নেই