শিরোনাম:

ময়মনসিংহে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে পদ বৃদ্ধির দাবিতে চাকুরী প্রত্যাশীদের মানববন্ধন

ময়মনসিংহে প্রাথমিক সহকারি শিক্ষক নিয়োগ-২০২০ এ পদ সংখা বৃদ্ধির দাবীতে মানববন্ধন করেছেন চাকুরী প্রত্যাশীরা।

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) সকালে নগরীর টাউন হল সংলগ্ন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনের সড়কে ঘন্টাব্যাপী এই মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করেন চাকরী প্রত্যাশীরা। এতে কয়েক শত চাকরী প্রত্যাশী তরুন ও তরুণী অংশ গ্রহন করে। পরে একটি বিক্ষোভ মিছিল করে তারা প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশ করে।

এ সময় মানববন্ধনকারী কিফায়েত উল্লাহ বলেন, কর্তৃপক্ষের পূর্বঘোষনা অনুযায়ি মেধাক্রমের ভিত্তিতে ৫৮ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দিতে হবে। বর্তমানে দেড় লাখ পদ শূন্য আছে। বিগত সময়ে সংশ্লিষ্ট কতৃর্পক্ষ ৫৮ হাজার শিক্ষক নিয়োগের ঘোষনা দিয়ে এখন ৩২ হাজার নিয়োগের পরিকল্পনা চলছে। যা বেকারদের সাথে বৈষম্য ছাড়া আর কিছুই নয়।

শীলা খাতুন আরেক চাকরী প্রত্যাশি বলেন, আমরা বৈষম্য চাই না। আমরা চাই প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী মোট ভাইবা পরীক্ষার্থীর প্রতি ৩ জনে ১ জন প্রার্থীর নিয়োগ দেওয়া হোক। মানবতার মা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বিষয়টি আন্তরিক ভাবে দেখবেন বলে প্রত্যাশি করি।

একই ধরনের বক্তব্য চাকরী প্রত্যাশি সীমা আক্তার, রাবিনা আক্তার, মনির হোসেন, আবু সাঈদ, আব্দুর রাজ্জাক, ইসমাঈল হোসেন, মো.অনিক, আরিফুল ইসলাম নভেল, সোলায়মান রাকিব আরও অনেকের। তারা জানায়, গত ৪ বছরে একটি নিয়োগও হয়নি। এতে অনেক চাকরী প্রত্যাশীর বয়স শেষ হয়ে গেছে। এই অবস্থায় মেধাক্রম অনুযায়ী ৫৮ হাজার শিক্ষক নিয়োগ হলে অনেকেই বেকারত্বের অভিশাপ মুক্ত হবে। আশা করছি সরকারের উচ্চ মহল বিষয়টি আমলে নিয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করবে।

মানবন্ধনকারী কিফায়েত উল্লাহ, রাজিবুল হক, শীলা খাতুন, সীমা আক্তার, রাবিনা আক্তার, মনির হোসেন, আবু সাঈদ, আব্দুর রাজ্জাক, ইসমাঈল হোসেন, মো.অনিক, আরিফুল ইসলাম নভেল, সোলায়মান রাকিব প্রমূখ।