যশোর শহর আ.লীগ সম্পাদক বিপুকে গ্রেফতার করায় কেশবপুরে সড়ক অবরোধ

যশোর শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম মাহমুদ হাসান বিপুকে গ্রেফতারের অভিযোগে মঙ্গলবার সকালে উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে কেশবপুরে সড়ক অবরোধ করা হয়েছে।

শহরের ত্রিমোহিনী মোড়ে সকাল ৮টা থেকে সড়ক অবরোধ শুরু হয় শেষ হয় সকাল সাড়ে ১০টায়। সড়ক অবরোধ করায় যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে দীর্ঘ যানযট সৃষ্টি হয়েছ ও ভোগান্তিতে পড়ে হাজারও মানুষ।

সড়ক অবরোধের নেতৃত্ব দেন কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম রুহুল আমীন ও সাধারণ সম্পাদক গাজী গোলাম মোস্তফা।
এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত আছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এইচ এম আমির হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক গৌতম রায়, শেখ এবাদত সিদ্দিকী বিপুল ও কাজী মুস্তাফিজুল ইসলাম মুক্ত, পাঁজিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মুকুল, সুফলাকাটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাস্টার আব্দুস সামাদ, পৌর কাউন্সিলর আতিয়ার রহমান, আওয়ামী লীগ নেতা আফছার উদ্দীন গাজী, আলতাফ হোসেন, উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক বি এম শহিদুজ্জামান শহিদ, যুগ্ম আহবায়ক আবু সাঈদ লাভলুসহ আওয়ামী ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য, সোমবার রাতে হযরত গরীব শাহ রোডে যশোর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এলাকায় তুচ্ছ ব্যাপার নিয়ে সিভিল টিমের তিন পুলিশ সদস্যের সাথে বাক-বিতণ্ডার জের ধরে যশোর শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম মাহমুদ হাসান বিপুসহ চারজনকে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে বলে তথ্য মিলেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার রাত আটটার দিকে যশোর শহরের কাজীপাড়া পুরাতন কসবা এলাকার কয়েক যুবক শহীদ মিনারে বসে গল্প করছিলেন। এসময় মেয়েলী বিষয় নিয়ে পুলিশ সদস্য ইমরানের সাথে তাদের বাক-বিতন্ডা হয়। পরে ইমরান নিজেকে পুলিশ পরিচয় দিলেও তাদের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হলে বিষয়টি পুলিশের উর্ধ্বতনরা জানতে পেরে ঘটনাস্থলে পৌছান। এসময় শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম মাহমুদ হাসান বিপু ঘটনাস্থলে পৌছালে পুলিশের একাধিক টিমের একটি টিম বিপুসহ চারজনকে গাড়িতে নিয়ে যায়। সাথে ইমরানকেও নিয়ে যাওয়া হয়।



মন্তব্য চালু নেই