শিরোনাম:

যাকে ছাড়তে ইউএনওর সঙ্গে নিক্সন চৌধুরীর অসদাচরণ, তাকে বরখাস্ত

মাদারীপুরের কালকিনি পৌরসভার উপ-সহকারী প্রকৌশলী এসএম লুৎফর রানাকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।

সরকারি চাকরিজীবী হয়েও উপজেলা পরিষদের উপনির্বাচনে একজন প্রার্থীর পোলিং এজেন্ট হওয়া, কর্তব্যরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সঙ্গে অসদাচরণ ও জাল ভোট প্রদানের প্রচেষ্টার অভিযোগে তাকে বরখাস্ত করা হয়।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসকের কাছে ভোটের দিন লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন ভাঙ্গার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ আল-আমীন। এরপর বুধবার (১৪ অক্টোবর) স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করে।

গত ১০ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হয় চরভদ্রাসনের এ উপনির্বাচন। নির্বাচনে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ আল-আমীন।

নির্বাচন শেষে তিনি জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করে বলেন, নির্বাচনের দিন চর অযোদ্ধা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের দোতলায় বুথের সামনে এক ব্যক্তিকে সন্দেহভাজন হিসেবে দেখা যায়। তিনি জাল ভোট দিচ্ছেন এমন সন্দেহ হওয়ায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তখন জানা যায় তিনি একজন পোলিং এজেন্ট। নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখার স্বার্থে তাকে হেফাজতে নেয়া হয়।

অভিযোগে বলা হয়, অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় হেফাজতে নেয়া ওই ব্যক্তির নাম লুৎফর রহমান রানা। তিনি মাদারীপুরের কালকিনি পৌরসভার উপ-সহকারী প্রকৌশলী হিসেবে কর্মরত।

তিনি সরকারি কর্মচারী (আচরণ) বিধিমালা ১৯৭৯ এবং উপজেলা পরিষদ নির্বাচন বিধিমালা ২০১৩, উপজেলা পরিষদ (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬ এবং সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা ২০১৮-এর সুস্পষ্ট লঙ্ঘন করেছেন। এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা প্রয়োজন।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) তার পত্রে আরও উল্লেখ করেন, এরপর ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান নিক্সন চৌধুরী আমাকে মোবাইলে ফোন করে ওই ব্যক্তিকে ছেড়ে দিতে হুমকি দেন।

পুলিশ হেফাজতে নেয়ার পর চরভদ্রাসনের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ফোন করে লুৎফর রহমানকে ছাড়তে অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ ভাষায় গালিগালাজ করেন এবং তার বাসভবনে হামলার হুমকি দেন এমপি নিক্সন চৌধুরী।



মন্তব্য চালু নেই