মেইন ম্যেনু

যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টের পথে আরেক বাঙালী নারী

যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টে আরেক বাঙালীর প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। বাঙালী অধ্যূষিত পূর্ব লন্ডনের লাইমহাউজ ও পপলার সংসদীয় আসনে ব্রিটিশ বাংলাদেশী আপসানা বেগম লেবার দলের প্রার্থী নির্বাচিত হওয়ায় এ সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।

বর্তমানে এই আসনে লেবার দলের এমপি হিসেবে আছেন জিম ফিটজপেট্রিক। তিনি আগামী নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার ঘোষণা দেওয়ার পর এখানে বাঙালীদের মধ্যে আশার আলো সঞ্চার হয়েছিল। পরে লেবার দলের পক্ষ থেকে এই আসনকে নারী আসন হিসেবে ঘোষণা দেওয়া হয়। দলের সদস্যদের গোপন ভোটে এতে আপসানা বেগম নির্বাচিত হন।

পপলার লাইমহাউজ সিএলপির সাবেক সেক্রেটারী ও বর্তমান ভাইস চেয়ার আপসানা বেগম তার প্রতিদ্বন্দ্বী কাউন্সিলার আমিনা আলীর চেয়ে ৫৮ ভোট বেশী পান। সেন্ট পলস ওয়ের সেন্ট পলস চার্চে পাঁচ শতাধিক লেবার পার্টির সদস্য তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। পপলার ও লাইমহাউজ সিএলপির চেয়ার মাইক ডেভিসের তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে প্রথমে প্রার্থীদের ৫ মিনিট করে স্ব স্ব প্রার্থীতার সমর্থনে বক্তব্য প্রদানের পর পরই শুরু হয় গোপন ব্যালেটে নির্বাচন। রাত আটটায় নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করেন- মাইক ডেভিস। প্রাপ্ত ফলাফল অনুয়ায়ী নির্বাচনে আপসানা বেগম ২৮১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়ে লেবার পার্টির প্রার্থীতা নিশ্চিত করেন। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী কাউন্সিলার আমিনা আলী পান ২২৩ ভোট।

পপলার ও লাইমহাউজ আসনটি লেবার পার্টির নিরাপদ আসন। তাই এখানে লেবার পার্টি থেকে মনোনয়ন পাওয়ায় চতুর্থ বাঙালী হিসেবে হাউজ অব কমন্সের পথে আরো এক ধাপ এগিয়ে গেলেন আপসানা। সরকারের পরিকল্পনা অনুযায়ী আগামী ডিসেম্বরে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলে এ বছরই পার্লামেন্টে পা রাখবেন আপসানা।

হাউস অব কমন্সে বর্তমানে তিন বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত এমপি রয়েছেন। এরা হলেন রুশনারা আলী, টিউলিপ সিদ্দিক ও রূপা হক। আর এদের পথে এগিয়ে যেতে অনেকটা বন্ধুর পথ পাড়ি দিয়েছেন আপসানা বেগম।

উল্লেখ্য, আপসানা টাওয়ার হ্যামলেটস এর সাবেক সিবিক মেয়র প্রয়াত মনির উদ্দিনের সন্তান। ব্রিটেনে জন্ম নেয়া এবং বেড়ে উঠা আপসানা বাংলা ভাষা লিখতে-পড়তে জানেন, যিনি কমিউনিটি ল্যাংগুয়েজে অনুদান কর্তনের প্রতিবাদে আন্দোলন করে আসছেন। আপসানা বেগম টাওয়ার হ্যামলেটস লেবার পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান এবং পার্টির লন্ডন রিজিয়নের সদস্য। ঐ পদে আপসানাই প্রথম কোন ব্রিটিশ বাঙালী। আপসানা মোমেন্টামের ন্যাশনাল কোঅর্ডিনেটরেরও দায়িত্ব পালন করছেন।



মন্তব্য চালু নেই