মেইন ম্যেনু

যুক্তরাজ্য প্রবাসী ব্যারিষ্টার ইমরান চৌধুরীর পক্ষে ডোমারে শীতবস্ত্র বিতরণ

হামিদা আক্তার, নীলফামারী থেকে : এবারে মাঘ মাসের বাঘ কাঁপানো শীতে অসহায় দরিদ্র মানুষেরা একেবারেই কাবু হয়ে পড়েছে। বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে এ অঞ্চলের জনজীবন। ঘন কুয়াশার চাঁদরে ঢাকা নীলফামারীতে উঁকি দিতে পারছেনা সুর্য্য। ঘন কুঁয়াশায় যানবাহনগুলো চলছে হেডলাইট জ্বালিয়ে। কনকনে শীতের আবহাওয়ায় স্থবীর হয়ে পড়েছে মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। হাড় কাঁপানো শীতে কাঁপছে হিমালয়ের পাদদেশের জেলা নীলফামারী। হিমশীতল বাতাস ও ঘন কুয়াশায় নেহায়েত প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে বের হচ্ছে না মানুষজন। আগুনের উত্তাপ নিয়ে শীত নিবারনের চেষ্টা করছে শীতার্ত মানুষ। রাত আটটার পরেই শুনসান হয়ে পড়ছে হাট-বাজার ও রাস্তা-ঘাটগুলি। ঘর হতে বের হতে না পারায় অনেকটা বিপাকে পড়েছে এ অঞ্চলের মানুষ। কাহিল হয়ে পড়া এসব শীতার্ত মানুষের পাঁেশ দাঁড়িয়ে শীতবস্ত্র বিতরণ করছে বঙ্গবন্ধু আইনজীবি পরিষদ যুক্তরাজ্য ও নীলফামারী জেলা শাখার আহবায়ক, আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগের উপদেষ্টা এবং ছাত্রলীগের নীলফামারী জেলা শাখার সাবেক সহ-সভাপতি যুক্তরাজ্য প্রবাসী ব্যারিষ্টার ইমরান কবীর চৌধুরী জনির পক্ষে তার মা নীলিমা খানব বেলী ও বাবা নীলফামারী জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার, বীরমুক্তিযোদ্ধা ওয়ালিউল কবীর চৌধুরী। রোববার দুপুরে ডোমার জোড়াবাড়ী ইউনিয়নে আইজারের হাট তুর্জ্জ চৌধুরীর চাঁতাল প্রাঙ্গনে দরিদ্র হতদরিদ্র ভিক্ষুক ও প্রতিবন্ধি বয়স্ক শীতার্তদের মাঝে দুই শতাধিক শীতবস্ত্র কম্বল বিতরণ করা হয়। বিতরণ কালে বাবা ওয়ালীউল কবীর চৌধুরী বলেন, আমার ছেলে ব্যরিষ্টার জনির পাঠানো পাঁচ শতাধিক শীতবস্ত্র কম্বল ও লেপ ডোমার-ডিমলায় শীতার্তদের মাঝে বিতরণ করা হচ্ছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও ব্যবসায়ী আসাদুজ্জামান জুয়েল, দি ডেইলী স্টার পত্রিকার নীলফামারী জেলা প্রতিনিধি আসাদুজ্জামান টিপু, নিউ ন্যাশন পত্রিকার নীলফামারী প্রতিনিধি আতোয়ার রহমান, একুশে টিভির নীলফামারী প্রতিনিধি আব্দুর রশিদ ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ প্রমূখ।



মন্তব্য চালু নেই