শিরোনাম:

যুবকের পুড়ে যাওয়ার দৃশ্য ‘উপভোগ’ করল পথচারীরা!

দুর্ঘটনার পর মোটরসাইকেলটি দাউ দাউ করে জ্বলে উঠে। আর সঙ্গে সঙ্গে আগুন লেগে যায় দুই আরোহীর গায়েও। আগ্রাসী লাল শিখা থেকে নিজেদের বাঁচানোর জন্য প্রাণপণ চেষ্টা করেন তাঁরা। ধুঁয়ায় দম বন্ধ হয়ে আসছে, তবু কথা বলতে পারছেন না দগ্ধরা। কী ভয়াবহ দৃশ্য!

কিন্তু এর মধ্যেও কেউ তাদের বাঁচাতে এগিয়ে আসেনি, বরং পাশ দিয়ে হেঁটে যাওয়া পথচারীরা ‘কৌতূহল নিয়ে উপভোগ’ করেছেন এই দৃশ্য! আর মুঠোফোনে ধারণ করা সেই ভয়ঙ্কর দৃশ্যের ভিডিও চিত্র মুহূর্তেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

ভারতের মহারাষ্ট্রের বিদ অঞ্চলে গত বৃহস্পতিবার এই দৃশ্যের অবতারণা হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মুম্বাই থেকে আট ঘণ্টার পথ মহারাষ্ট্রের বিদ অঞ্চল। এখানেই দুটি মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আগুন লাগার পর একজন আরোহী ছিটকে জ্বলন্ত মোটরসাইকেলের নিচে চলে যান।

পুলিশের ভাষ্য, সম্ভবত আরোহী অচেতন হয়ে যাওয়ার কারণে চিৎকার করে সাহায্য চাইতে পারেননি। যখন পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে ততক্ষণে তিনি পুড়ে ভস্ম হয়ে গেছেন। আর অন্য মোটরসাইকেল আরোহী গতকাল শুক্রবার হাসপাতালে মারা গেছেন।

গাড়ি চলাচলের রাস্তার অদূরেই জ্বলছিলেন ওই মোটরসাইকেল আরোহী। কিন্তু কোনো পথচারীই তাঁদের সহায়তায় এগিয়ে আসেনি। পাশেই ছোট জটলা পাকিয়ে এই ‘ভয়ংকর দৃশ্য উপভোগ’ করছিল অনেকে। অনেকে আবার তখন মুঠোফোনে এ দৃশ্য ধারণ করতেও ব্যস্ত ছিল।

পুলিশ এ ঘটনার তদন্ত করছে। পুলিশের ধারণা, মোটরসাইকেল আরোহী একটি মদের বোতল বহন করছিলেন, সেখান থেকেও এ আগুনের সূত্রপাত হতে পারে।

একজন জ্যেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তা সংবাদমাধ্যম এনডিটিভিকে বলেন, ‘আমরা কে ভুক্তভোগী তা শনাক্ত করার জন্য কাজ করে যাচ্ছি। মোটরসাইকেলের নামফলক জ্বলে যাওয়ার কারণে আমরা ভুক্তভোগী সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারিনি। নামফলকের পাত দেখে আমারা ধারণা করছি, এটি পাশের শহর পারভানি থেকে নিবন্ধন করা হয়েছিল। আমরা পুড়ে যাওয়া নামফলকটি আঞ্চলিক পরিবহন দপ্তরকে দিয়েছি। তারা হয়তো আমাদের বিস্তারিত তথ্য দিতে পারবে।’