প্রধান ম্যেনু

যে কারণে ৪ বোনের বিয়ে একই দিনে

একই দিনে জন্মগ্রহণ করেছিলেন চার বোন। বোনদের সঙ্গে পৃথিবীতে এসেছিলেন এক ভাইও। একসঙ্গে পাঁচ শিশুর জন্মদানকে চিকিৎসাশাস্ত্রের ভাষায় কুইন্টুপ্লেটস বলা হয়।

১৯৯৫ সালের ১৮ নভেম্বর দক্ষিণ ভারতের কেরালা রাজ্যের এক দম্পতির পরিবারে এমন অভিনব ঘটনা ঘটেছিল।

২৪ বছর পর সেই পরিবারই আরেকটি অভিনব ঘটনার জন্ম দিতে যাচ্ছে। একই দিনে সেই চার যমজকে বিয়ে দেয়ার পরিকল্পনা করেছেন তাদের বাবা-মা। ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমের খবর, সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী বছরের এপ্রিলের ২ তারিখে এই চার বোন একসঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে বসবেন।

সংবাদমাধ্যমটি জানায়, ১৯৯৫ সালে একসঙ্গে ৫ সন্তানের জন্ম দেন কেরালা রাজ্যের রেমা দেবী নামের এক নারী। এদের মধ্যে চার বোনের নাম রাখা হয় – উথ্রাজা, উথারা, উথামা, উথ্রা। বোনদের নামের সঙ্গে মিল রেখে একমাত্র ভাইয়ের নাম রাখা হয় উথ্রাজন।

গত ২৪ বছর ধরে একই ছাদের নীচে বড় হয়েছেন তারা। তারা একই খাবার খান এবং একই ধরণের পোশাক পরেন – এমনকি ১৫ বছর বয়স পর্যন্ত বিদ্যালয়ে একই বেঞ্চে বসতেন। জন্মদিন একই দিনে হলেও ৫টি কেক কেটে তাদের শুভেচ্ছা জানাতেন স্বজনরা।

স্থানীয়ভাবে বেশ জনপ্রিয় এই চার বোন এক ভাই। সবাই তাদের চেনে। স্থানীয় পত্রিকায় তাদের নিয়ে অনেক লেখালেখিও হয়েছে।

এদিকে বিয়ের খবরে বেশ খুশি চার বোন।

সম্প্রতি বিবিসেকে চার বোনের একজন উথারা বলেন, একসঙ্গে পাঁচ জন্মেছি দেখে আমরা স্থানীয়ভাবে খুব আলেচিত। আমাদের নানা বিষয় নিয়ে মানুষ গল্পে মেতে থাকে। তবে এখন বিয়ের বিষয় নিয়েই বেশিরভাগ কথা হচ্ছে।

এরপরই দুঃখ ও হতাশা দেখা যায় উথারার চোখেমুখে। তিনি বলেন, আমরা এখনও আমাদের সেই বিশেষ দিনটির জন্য সিল্কের শাড়ি কিনতে পারিনি। এ নিয়ে আমাদের বিশেষ পরিকল্পনাও রয়েছে। আমরা একই নকশা এবং একই রঙের শাড়ি কিনব।

তিনি বলেন, আমরা চাচ্ছি জন্ম যেহেতু একই দিনে এবং আমরা সবাই যখন একইরকম চলেছি। তাই আমাদের বিয়েও একই দিনে হবে। বিয়ের সমস্ত আয়োজনও যেন দেখতে একইরকম হয়।

উথারা জানান, তাদের মা রেমা দেবী বিবাহ ম্যাচমেকিং ওয়েবসাইটের মাধ্যমে মেয়েদেরকে নিজেদের স্বামী বাছাই করে নিতে সাহায্য করেছেন।

পছন্দের পাত্রদের সঙ্গে যোগাযোগ করে পাত্রপক্ষদের সম্মতি নেয়া হয়। এরপর জ্যোতিষীরা পাত্র-পাত্রীর রাশিফলগুলো পরীক্ষা করে তাদের পরিবারকে জানায়, সত্যিই তাদেরকে একে অপরের জন্য তৈরি করা হয়েছে।

জানা গেছে, চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে এই চার বোনের বাগদান সম্পন্ন হয়েছে। বরদের তিনজনই মধ্যপ্রাচ্যে প্রবাসী হওয়ায় বাগদান অনুষ্ঠানে চার বরের মধ্যে তিনজনই উপস্থিত থাকতে পারেননি।

তবে বিয়ের উদ্দেশে আগামী বছরের এপ্রিল মাসের আগেই দেশে ফিরবেন তারা।



মন্তব্য চালু নেই