মেইন ম্যেনু

রাজধানীতে পুলিশের ওপর ৫ মাসে ৩ বোমা হামলা

গত পাঁচ মাসে রাজধানীতে পুলিশের উপর তিনটি বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে। পুলিশের মনোবল ঘায়েল করতে আইএসের নাম ভাঙিয়ে জঙ্গি কিংবা সন্ত্রাসী গোষ্ঠী এই বোমা হামলাগুলো চালাচ্ছে বলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বরাবরই দাবি করছে। সর্বশেষ সায়েন্স ল্যাবরেটরি মোড়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে ককটেল হামলার ঘটনা ঘটেছে। শুধু বোমা হামলা নয়, রাজধানীতে দুই পুলিশ বক্স এলাকায় বোমা রেখে গিয়ে আতঙ্কও ছড়িয়েছে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী।

এদিন রাত ৯টার দিকে সায়েন্স ল্যাবরেটরি মোড়ে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলামের গাড়িবহর যাওয়ার সময় বোমা হামলা চালানো হয়। হামলায় মন্ত্রীর গাড়ি বহরের এক পুলিশ কর্মকর্তা এবং এক ট্রাফিক পুলিশ সদস্য আহত হন। পুলিশকে টার্গেট করে এই হামলা চালানো হয় বলে ঘটনার পরপরই মন্তব্য করেন ঢাকা মহানগর পুলিশের বিদায়ী কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া।

হামলায় আহতরা হলেন— এএসআই শাহাবুদ্দিন (৩৫) ও কনস্টেবল আমিনুল (৪০)। ককটেল হামলার পরপরই তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। হামলার বিষয়ে রমনা জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি, ধানমন্ডি) হাসিনুজ্জামান বলেন, ‘কে বা কারা এমনটা ঘটিয়েছে তা জানা যায়নি এখনও। তবে ঘটনার সঙ্গে জড়িত এবং বিস্ফোরণকৃত বোমাটি প্রকৃতপক্ষে কি ধরনের ছিল, সেটি উদঘাটনে তদন্ত চলছে।’ এর আগে, ২৯ এপ্রিল রাজধানীর গুলিস্তানে পুলিশকে লক্ষ্য করে ককটেল ছোড়া হয়। এতে ট্রাফিক কনস্টেবল নজরুল ইসলাম (৩৭), লিটন (৪২) ও কমিউনিটি পুলিশ মো. আশিক (২৮) আহত হন।

এ সময় গুলিস্তানের ডন প্লাজার সামনে দায়িত্ব পালন করছিলেন পুলিশের দুই সদস্য। হঠাৎ একটি শক্তিশালী ককটেল তাদের সামনে পড়ে এবং বিকট শব্দে বিস্ফোরণ হয়। রাজধানীর মালিবাগে ২৬ মে পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে বোমা হামলা চালানো হয়। এ সময় ট্রাফিক পুলিশের এএসআই রাশেদা আক্তার বাবলী (২৮) ও রিকশাচালক লাল মিয়া (৫৫) আহত হন। এ ছাড়া ২৩ জুলাই রাতে রাজধানীর পল্টন মোড় ও খামাড়বাড়ি পুলিশ বক্সের কাছে ফেলে রাখা বোমা উদ্ধার করা হয়।

জঙ্গি গোষ্ঠী ‘আইএস’ এর পরিচয় দিয়ে এই তিনটি হামলার দায় স্বীকার করা হয়। তবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বরাবরই দাবি করছে, বাংলাদেশ আইএসের কোনো সরাসরি কার্যক্রম নেই। নব্য জেএমবি নামে একটি জঙ্গি সংগঠন রয়েছে, যার কিছু সদস্য আইএসের মতাদর্শী। হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার পর পুলিশের অভিযানে তাদের সাংগঠনিক ক্ষমতা কমে গেছে।



মন্তব্য চালু নেই