মেইন ম্যেনু

রুমমেটের ঘুষিতে নাক ফাটলো সিরিয়াল অভিনেত্রীর

যার সঙ্গে বিগত কয়েক বছর রুম ভাগাভাগি করে ছিলেন, সেই রুমমেট মেরে নাক-মুখ ফাটিয়ে দিয়েছেন ভারতের জনপ্রিয় হিন্দি ধারাবাহিক অভিনেত্রী নলিনী নেগীর। ভারতের একাধিক জনপ্রিয় ধারাবাহিক ও টেলিভিশনের অভিনেত্রী তিনি। বিষয়টি নিয়ে রুমমেট প্রীতি রানা ও তার মা স্নেহলতা রানার বিরুদ্ধে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ দায়ের করেছেন ‘নামকরণ’ ধারাবাহিকের অভিনেত্রী নলিনী। আন্ধেরিতে ওশিওয়াড়া পুলিশ স্টেশনে এফআইআর দায়ের করেছেন তিনি।

ভারতের একাধিক গণমাধ্যম বিষয়টি নিশ্চিত করেছ। পুলিশের বরাত দিয়ে তারা জানায়, গত ২১ আগস্ট নলিনী রুমমেট প্রীতি ও তার মাকে বাড়ি ঘর খালি করতে বলেন। কারণ নলিনীর পরিবারের লোকজনের সেখানে আসার কথা ছিল। কিন্তু বাবা-মায়ের আসার কথা জেনে প্রীতিদের ঘর ছাড়তে বলার পর থেকেই শুরু হয় অশান্তি।

নলিনীর দাবি, আমি আমার এক বন্ধুর সঙ্গে জিমে যাচ্ছিলাম। এমন সময় প্রীতির মা অত্যন্ত খারাপ আচরণ করে। আমি তাকে বলি বিষয়টি নিয়ে পরে কথা হবে। তখন প্রীতির মা মেয়েকে ডেকে বলেন আমি তাকে অপমান করেছি। চিৎকার শুরু করেন। তিনি আচমকা গ্লাস দিয়ে আমার ওপর হামলা চালান। প্রীতি এসেও ঘুষি মারেন। মা ও মেয়ের আক্রমণে আমার মুখ নষ্ট হয়েছে। প্রীতি নিজেও একজন উঠতি মডেল। ও জানে একজন অভিনেত্রীর কাছে মুখ কতটা গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু ওরা আমার মুখটা কেন নষ্ট করতে চেয়েছিল বুঝতে পারছি না।

নলিনী জানান, কয়েক বছর আগে মুম্বাইতে প্রীতি যখন বাড়ি ভাড়া করতে পারছিলেন না, সেই সময় তাকে থাকার জন্য জায়গা দেন। সেই থেকে নলিনির ফ্ল্যাটে থাকতে শুরু করেন প্রীতি। কিন্তু একা থাকবেন বলে নলিনী আলাদা ফ্ল্যাট নিয়ে ওশিয়াড়ার চলে যান। কদিন পরেই প্রীতি ও তার মা কয়েক সপ্তাহ থাকার জন্য সেই ফ্ল্যাটে এসে উপস্থিত হন। বেশ কয়েক বছর নলিনীর ফ্ল্যাটে থাকার পরও প্রীতি সেখান থেকে যেতে চাচ্ছিলেন না।



মন্তব্য চালু নেই