সংগীত পরিচালক আজাদ রহমান আর নেই

বিখ্যাত সংগীত পরিচালক আজাদ রহমান আর নেই। আজ বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি মৃত্যুবরণ করেছেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া….ইলাহি রাজিউন)। তিনি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সদস্য ছিলেন। তার মৃত্যুতে সংগীত ও চলচ্চিত্রাঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

আজাদ রহমান একাধারে সুরকার, সংগীত পরিচালক ও সংগীতশিল্পী ছিলেন। পাশাপাশি তিনি উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত ও খেয়াল গানের চর্চা করেন। তাকে বাংলাদেশের খেয়াল গানের জনকও বলা হয়। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের গানে অবদানের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ সংগীত পরিচালক ও কণ্ঠশিল্পী বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন।

আজাদ রহমান ১৯৪৪ সালের ১ জানুয়ারি তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। পশ্চিমবঙ্গ থেকে বাংলাদেশে এসে তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা শুরু করেন। তার চলচ্চিত্রে আগমন ১৯৬৩ সালে কলকাতার ‘মিস প্রিয়ংবদা’ চলচ্চিত্রের সংগীত পরিচালনার মধ্য দিয়ে।

বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে তার সুরকৃত প্রথম চলচ্চিত্র বাবুল চৌধুরীর ‘আগন্তুক’। তার সুর করা ও গাওয়া এপার-ওপার চলচ্চিত্রে ‘ভালবাসার মূল্য কত’, ডুমুরের ফুল চলচ্চিত্রে ‘কারো মনে ভক্তি মায়ে’, দস্যু বনহুর চলচ্চিত্রে ‘ডোরা কাটা দাগ দেখে বাঘ চেনা যায়’ গানগুলো সত্তরের দশকে জনপ্রিয়তা লাভ করে। তিনি চলচ্চিত্রের সংগীত পরিচালনার পাশাপাশি ‘জন্ম আমার ধন্য হলো মা গো’র মতো কালজয়ী দেশাত্মবোধক গানের সুর করেছিলেন।



মন্তব্য চালু নেই