সাতক্ষীরার কলারোয়ায় বৃদ্ধকে গলা কেটে হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা ।। জামাতা আটক

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় কৃষক মোসলেম উদ্দীন বিশ্বাসসকে গলা কেটে হত্যা করার ঘটনায় মামলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নিহতের ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান বাদি হয়ে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামী করে কলারোয়া থানায় এ মামলা দায়ের করেন।
এদিকে এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ নিহতের জামাতা দেয়াড়া দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক আবুল কালাম আজাদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়।

নিহতের স্ত্রী আছিয়া খাতুন জানান, ‘জমি নিয়ে বিরোধসহ দেয়াড়া দাখিল মাদ্রাসার সভাপতি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে স্থানীয় অহেদ আলীর সঙ্গে তার স্বামীর বিরোধ চলছিল। তিন বছর আগে তার স্বামীকে মারপিটও করে অহেদসহ তার লোকজন।’

আছিয়া খাতুন আরো জানান, ‘তার দু’ছেলের মধ্যে ছোট ছেলে বাচ্চু মালয়েশিয়ায় থাকে। বাচ্চুর টাকা দিয়ে কয়েক মাস আগে বাড়ি থেকে কয়েক’শ গজ দূরে নতুন বাড়ি তৈরী করা হয়। নতুন বাড়িতে তারা মাঝে মাঝে অবস্থান করতেন। মঙ্গলবার তিনি দুর্ঘটনায় আহত তার ভাই বাবুকে দেখতে ছোট মেয়ে নার্গিসকে নিয়ে বাপের বাড়ি সাতক্ষীরা শহরের সুলতানপুরে যান। নার্গিস বুধবার দুপুরে বাড়ি ফিরে যায়। মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে তার স্বামী ভাত খেয়ে নতুন বাড়িতে যায়। সকালে তিনি বাড়িতে আসেননি। বাড়ির লোকজন ওই বাড়িতে যেয়ে বাইরে থেকে তালাবদ্ধ অবস্থায় দেখতে পায়। ফলে তার স্বামীকে সম্ভাব্য সকল জায়গায় খোঁজ করেও না পেয়ে বুধবার সন্ধ্যায় তালা ভেঙে দেখতে পায় গলাকাটা লাশ।’

মাদ্রাসা ও জমি নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে তার স্বামীকে হত্যা করা হতে পারে বলে তিনি প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন।

কলারোয়া থানার ওসি (তদন্ত) হারান চন্দ্র পাল জানান, ‘নিহতের মরদেহ ময়না তদন্ত শেষে বৃহস্পতিবার বিকালে স্বজনদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।’

তিনি আরো জানান, ‘এ ঘটনায় নিহতের ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান বাদী হয়ে কারো নাম উল্লেখ না করে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। তবে নিহতের জামাইকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে।’



মন্তব্য চালু নেই