শিরোনাম:

সাফজয়ী নারী ফুটবলার আঁখির বাবাকে পুলিশের হুমকি

সাফ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ জিতে নতুন ইতিহাস গড়েছে বাংলাদেশ। শিরোপা জয়ে দেশজুড়ে বইছে আনন্দের জোয়ার। এই আনন্দ ও উৎসবের সময় নারী ফুটবলার দলের ডিফেন্সের খেলোয়ার আঁখি খাতুনের বাবাকে হুমকি দিয়েছেন, শাহজাদপুর থানার উপ পরিদর্শক (এএসআই) মামুন। এমন অভিযোগ করেছেন আঁখি ও তার বাবা।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নারী ফুটবলার আখিঁর বড় ভাই নজরুল ইসলাম বলেন, একটি কাগজে সই করতে রাজি না হওয়ায় বাবাকে থানায় উঠিয়ে নিয়ে যাওয়ার হুমকি দেওয়া হয়েছে।

নজরুল ইসলাম আরও বলেন, বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) বিকেলে শাহজাদপুর থানার এএসআই মামুনসহ একটি টিম আমাদের বাড়িতে আসে। পরে আমার বাবাকে বলেন, সরকার থেকে আঁখিকে যে জায়গাটি দেওয়া হয়েছে। এই জায়গার উপরে কোর্ট থেকে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। আপনারা এখান থেকে চলে যান। তা না হলে থানায় ধরে নিয়ে যাবো।

ফুটবলার আঁখি খাতুন জানান, আমার বাবাকে থানা থেকে ধমকানো হয়েছে, একটা পেপার নিয়ে। বলেছে সই করতে হবে, আমার বাবা সই করেননি। তাই আমার বাবাকে থানায় নিয়ে যাবে বলেছে। আমাকে ফোনে জানানো হয়েছে, আমি যাওয়ার পর থানায় যেতে হবে আমাকেও।

আঁখির বাবা বলেন, আমি বাদী বা আসামি কোনোটাই না। আমি পুলিশকে বলেছি আপনারা ইউএনও বা ডিসি স্যারের সাথে কথা বলেন। তখন আমাকে কটুক্তি করেছে তারা। আর এক পুলিশ সদস্য আমাকে ধরে নিয়ে যাবে বলেছে।

শাহজাদপুর থানার সহকারী উপ পরিদর্শক (এএসআই) মো. মামুন হোসেন জানান, জমি সংক্রান্ত বিষয়ে আদালতের মাধ্যমে কোর্ট থেকে ১৪৪ ধারা জারির নোটিশ নিয়ে আঁখির বাড়িতে যাওয়া হয়েছিলো। সেই নোটিশটি আঁখির বাবা বুঝে পেয়েছেন এই জন্য একটি সই করতে বলা হয়। এবিষয়ে একটু কথা কাটাকাটি হয়। পরে ওসি স্যার ঘটনাস্থলে আসলে স্যারের সামনে সরি বলেছি।

শাহজাদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম মৃধা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আঁখিদের জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে কোর্ট থেকে একটা নোটিশ এসেছে। সেই নোটিশের কপিটা এএসআই মামুন আঁখির বাবাকে দিতে গিয়েছিল এবং রিসিভ করে একটা সই দিতে বললে সেখানে আঁখির বাবার সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। বিষয়টি আমি শোনার পর ঘটনাস্থলে গিয়ে এএসআই মামুনকে দিয়ে সরি ও ক্ষমা করে দিবেন, বলানো হয়েছে।