প্রধান ম্যেনু

সারাদেশে ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা

সারাদেশে যথাযোগ্য মর্যাদায় আজ পালিত হয়েছে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও মহান শহীদ দিবস। ১৯৫২ সালের এই দিনে মাতৃভাষার দাবিতে রাজপথে শহীদ হন রফিক, শফিক, সালাম, বরকত ও জব্বারসহ আরও অনেকে।

সেই থেকে প্রতিবছর জাতির এ শ্রেষ্ঠ সন্তানদের প্রতি যথাযোগ্য মর্যাদায় বিনম্র শ্রদ্ধা জানায় গোটা বাঙালি জাতি।

প্রতিবছরের ন্যায় এবারও ভাষা শহীদদের প্রতি সর্বপ্রথম শ্রদ্ধা জানান রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় তারা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করেন।

এরপরই জাতীয় সংসদের স্পিকার, মন্ত্রীপরিষদের সদস্য থেকে শুরু করে সর্বস্তরের মানুষ শহীদদের প্রতি ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। একইসঙ্গে সংসদের বিরোধী দল, দেশের আইন শৃঙ্খলাবাহিনী ও কূটনীতিকরা শহীদদের স্মরণ করেন।

বেদি প্রাঙ্গণে শুক্রবার রাত ১২টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে শুরু করে সারাদেশে সামাজিক, রাজনৈতিক, সাস্কৃতিক সংগঠনগুলো তাদের নিজস্ব ব্যানারে ভাষা শহীদদের স্মরণ করে। ফুলে ফুলে ভরে যায় দেশের সকল শহীদ মিনার।

বরিশাল: বরিশালে যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। একুশের প্রথম প্রহরে শুক্রবার রাত ১২টা ১ মিনিটে বরিশাল কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রথমে ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক (মন্ত্রী মর্যাদা) আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এমপি।

এরপর সিটি মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ, বিভাগীয় কমিশনার মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী, মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান, অতিরিক্ত ডিআইজি একে এম এহসানউল্লাহ, জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান, পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম নিজ নিজ দপ্তর ও প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এরপর জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ, দক্ষিন জেলা বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন ও সর্বস্তরের জনসাধারণ প্রথম প্রহরে শহীদ বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

কুমিল্লা: যথাযোগ্য মর্যাদায় কুমিল্লায় ভাষা সৈনিকদের স্মরণে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয়েছে। শুক্রবার রাত ১২ টা ১ মিনিটে একুশের প্রথম প্রহরে কুমিল্লা টাউন হল মাঠের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন সদর আসনের এমপি হাজী আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার।

এসময় সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য আঞ্জুম সুলতানা সীমা, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আবু তাহের, জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর, পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

রাজশাহী: পরম শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় ভাষা শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়েছে রাজশাহীবাসী। একুশের প্রথম প্রহরে জনতার হৃদয় উৎসারিত স্পর্শে, খালি পায়ে আসা মানুষের পদভারে জেগে উঠে স্মৃতির শহীদ মিনার।

শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রথম প্রহরে রাজশাহী কলেজ শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানান সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। রাত ১২টা ১টি মিনিটে প্রথমে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন তিনি। এ সময় অমর একুশের কালজয়ী গান ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’ বাজানো হয়।

এ সময় মহানগর পুলিশ কমিশনার হুমায়ুন কবির, রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর হবিবুর রহমান, নগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও মেয়রপত্নী শাহীন আক্তার রেনী, সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল, নওশের আলী, সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাঈমুল হুদা রানাসহ নগর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এরপর বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনুর নেতৃত্ব দলের নেতাকর্মীরা শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানায়। এ সময় নগর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ও সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলন উপস্থিত ছিলেন।

পরে রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর হবিবুর রহমানের নেতৃত্বে কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানান। এরপর বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও পেশাজীবী সংগঠনের পক্ষ থেকে শহীদ মিনার পুস্পস্তবক অর্পন করা হয়।

গাজীপুর: যথাযোগ্য মর্যাদায় গাজীপুরে পালিত হয়েছে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। রাত ১২টা ১মিনিটে কালিয়াকৈর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক।

এসময় তিনি বলেন, ‘যে পাকিস্তানীরা আমাদের মাতৃভাষা কেড়ে নিতে চেয়েছিল সেই পাকিস্তানেও আজকের এই দিনে বাংলা ভাষা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালিত হচ্ছে। সন্দেহাতীত ভাবে প্রমাণিত ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস, এটাই আমাদের জাতি সত্তার পরিচয়।’

পরে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানায়, কালিয়াকৈর উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা আওয়ামী লীগ, পৌর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজ ও বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠন।

মাগুরা: মাগুরায় যথাযথ মর্যাদায় জাতীয় শহীদ দিবস ও আন্তার্জতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে শুক্রবার সকাল ৭টায় জেলা প্রশাসনের আয়োজনে কালেক্টরেট চত্ত্বর থেকে প্রভাতফেরির র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি শহর প্রদক্ষিণ শেষে সরকারি কলেজের শহীদ মিনার চত্ত্বরে গিয়ে শেষ হয়।

এতে অংশ নেয় মাগুরা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর, জেলা প্রশাসক ড.আশরাফুল আলম, জেলা পুলিশ সুপার খান মুহাম্মদ রেজোয়ানসহ শহরের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

পাশপাশি শহীদ মিনার চত্ত্বরে সকালে আলোচনা সভা, আবৃত্তি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ নেয় শহরের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন। এছাড়াও সকাল ১০টায় সৈয়দ আতর আলী গণগ্রন্থাগারে জেলা একাডেমির আয়োজনে শিশুদের আবৃত্তি, সুন্দর হাতের লেখা ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয় ।

বাগেরহাট: মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানাতে বাগেরহাটের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে হাজারও মানুষের ঢল নামে।

শুক্রবার রাত ১২টা বাজার সাথে সাথে শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এর পরেই শহীদ মিনারের বেদিতে বাগেরহাট জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও বাগেরহাট-৪ আসনের উপ নির্বাচনে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী কাজী খায়রুজ্জামান শিপন পুস্পমাল্য অর্পণ করেন। এর পরেই ভাষা সৈনিকদের প্রতি শ্রদ্ধায় শত শত পুস্পমালায় ভরে যায় শহীদ মিনারের বেদি।

এসময় বাগেরহাট জেলা প্রশাসক মো.মামুনুর রশীদ, পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায়, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. কামরুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামরুজ্জামান টুকু, প্রেসক্লাব সভাপতি মোজাফফর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বাকি তালুকদার, জেলা বিএনপি ও বাগেরহাট-৪ আসনের উপ নির্বাচনে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী কাজী খায়রুজ্জামান শিপন ও স্থানীয় প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তি দলীয় নেতা কর্মীসহ হাজার হাজার লোক উপস্থিত ছিলেন।

বাগেরহাট জেলার বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারী দপ্তর, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে শহীদ মিনারে পুস্পমাল্য অর্পণ করা হয়।

ফেনী: যথাযোগ্য মর্যাদায় শহীদ দিবস ও মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসের শুরুতে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানিয়ে শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি সংস্থা, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন, এনজিও সংস্থাসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ।

৫২ এর ভাষা আন্দোলনে আত্মত্যাগকারী বীর শহীদদের সম্মানার্থে প্রথমে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানান ফেনী -২ আসনের সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী। পরে ফেনী জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজজামানের নেতৃত্বে ফেনী জেলা প্রশাসন, পুলিশ সুপার নুরুন্নবী’র নেতৃত্বে ফেনী জেলা পুলিশ প্রশাসন শহীদ বেদীতে পুষ্পমাল্য অর্পণের পর পর সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়।

এ সময় শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এলাকায় মানুষের ঢল নামে। মুহূর্তের মধ্যে পুরো শহীদ মিনার বেদী ফুলে ফুলে ভরে যায়।

সিরাজগঞ্জ: যাদের অতীতে কলাগাছ আর বাঁশের তৈরী ক্ষণিকের শহীদ মিনারে ভাষা দিবস পালন করতে হতো, ইটিভি একুশে ফোরামের উদ্যোগে নির্মিত সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুর থানার গোপিনাথপুরে শহীদ মিনারে ৬ষ্ঠ বারের মত আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস বর্ণাঢ্যভাবে পালন করলো ভাষা মতিনের এলাকার সর্বস্তরের মানুষ।

শুক্রবার সকালে একুশে ফোরামের উদ্যোগে বের করা হয় বর্ণাঢ্য প্রভাত ফেরি। এরপর শহীদ মিনারে একে একে ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রোদ্ধা জানান ভাষা মতিনের পরিবারবর্গ, সিরাজগঞ্জ একুশে ফোরামসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রী এবং শিক্ষকরা।

এসময় একুশে ফোরামের সভাপতি আখতারুজ্জামান তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক ফজলুল হক ডনু, সাংবাদিক স্বপন মির্জা, ফোরামের সদস্য শিক্ষক নুরুল ইসলাম মন্ডল, সুধাংশু রায়, ভাষা মতিনের নাতি গোলাম মোহাম্মদ অভি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ঠাকুরগাঁও: যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্যদিয়ে একুশের প্রথম প্রহরে ঠাকুরগাঁওয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদিতে বিউগলের সুরের মূর্ছনা শেষ হওয়ার সাথে সাথেই ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঠাকুরগাও-১ আসনের সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন। এসময় তিনি ১ মিনিট নিরবতা পালন করেন।

এরপর জেলা প্রশাসক ড. কে এম কামরুজ্জামান সেলিম, পুলিশ সুপার মোহা. মনিরুজ্জামান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহা. সাদেক কুরাইশী একে একে পুস্পস্তবক অর্পণ করার পর বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, সামাজিক ও রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দসহ সর্বসাধারণ শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন।

ঝালকাঠি: ভাষা আন্দোলনের বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের মধ্যদিয়ে ঝালকাঠিতে নানা কর্মসূচিতে পালিত হয়েছে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।

রাত ১২টা ১ মিনিটে ঝালকাঠি কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রথমে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন জেলা প্রসাসক মো. জোহর আলী। এরপর জেলা পুলিশের পক্ষে পুলিশ সুপার ফাতিহা ইয়াসমিন, জেলা আওয়ামী লীগ, বিএনপি, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ পুস্পস্তবক অর্পণ করে।

পরে ঝালকাঠি প্রেস ক্লাব, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের ব্যানারে শহীদ বেদীতে ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

শুক্রবার সকালে প্রভাত ফেরি শুরু হয়ে সিটি পার্ক কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গিয়ে শেষ হয়। পরে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সংস্কৃতিক সংগঠন এবং সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে।

এছাড়া ঝালকাঠিতে প্রভাত ফেরি, প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শনী, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে যথাযোগ্য মর্যাদায় দিবসটি পালন করা হয়।



মন্তব্য চালু নেই