সিঙ্গাপুরের করোনা সাথে নিয়েই বাঁচার পরিকল্পনা

দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দ্বীপরাষ্ট্র সিঙ্গাপুরের জনসংখ্যা প্রায় পাঁচ দশমিক ৭০ মিলিয়ন। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সহ সিঙ্গাপুরে মাত্র ৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে সর্বোচ্চ সতর্কাবস্থা নিয়েছিল। কিন্তু তারপরেও সামাজিক সংক্রমণ রোধ করতে পারেনি। করোনার বৈশ্বিক এমন বাস্তবতার মধ্যে সিঙ্গাপুর সরকার করোনাকে সাথে নিয়েই বেঁচে থাকার পরিকল্পনা করছে।

বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস মহামারীর দেড় বছর হতে চলছে। এই দেড় বছরে বিপুল সংখ্যক মানুষ মারা গেছে। হাসপাতালগুলোতে এখনো অনেক মানুষ করোনা আক্রান্ত হয়ে ভর্তি আছে। বিজ্ঞানীরা এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাস নির্মূল করতে শতভাগ কার্যকরী কোনো টিকা বা ওষুধ বের করতে পারেনি।

ইতিমধ্যে যে টিকাগুলো বাজারে এসেছে তার সবগুলোই করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তির শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। এমনও দেখা যাচ্ছে, দুই ডোজ টিকা নেওয়ার পরেও আক্রান্ত হচ্ছেন অনেকে। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, টিকা নেওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুহার অনেক কম।

চলতি বছরের জুনে সিঙ্গাপুরের সংসদে সংসদ সদস্যরা এক চিঠি প্রকাশের মাধ্যমে নতুন স্বাভাবিক পরিস্থিতির ঘোষণা করে। ওই ঘোষণায় তারা সিঙ্গাপুরের ‘জিরো ট্রান্সমিশন’ মডেল থেকে সরে আসে। উল্লেখ্য, সিঙ্গাপুরের জিরো ট্রান্সমিশন মডেল অনুসরণ করেছিল এশিয়া-প্যাসিফিকের বেশ কয়েকটি দেশ।



মন্তব্য চালু নেই