প্রধান ম্যেনু

সিলেটে বিএনপি আমাদের সমর্থন দেবে : জামায়াত প্রার্থী

সিলেট সিটি কর্পোরেশন (সিসিক) নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে কি-না এ নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন জামায়াতে ইসলামী সমর্থিত মেয়র প্রার্থী টেবিল ঘড়ি প্রতীকের এহসানুল মাহবুব জুবায়ের।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নগরের ইলেকট্রিক সাপ্লাইস্থ নিজ নির্বাচনী প্রধান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণার পর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ আশঙ্কা প্রকাশ করেন।

এক প্রশ্নের জবাবে জুবায়ের বলেন, ১৩টি সিটি কর্পোরেশনের মধ্যে আমরা (জামায়াত) মাত্র একটি সিটিতে ২০ দলীয় জোটের সমর্থন চাই। বাকি সবগুলোতে জামায়াত বিএনপিকে সমর্থন দিয়েছে। কিন্তু বিএনপি আমাদের একটিতেও সমর্থন দিতে নারাজ। তাই আমরা বাধ্য হয়ে সিলেট সিটিতে মেয়র প্রার্থী দিয়েছি।

তিনি বলেন, বিএনপিসহ দু’একটি দল ছাড়া জোটের অন্যদলগুলো আমাদের সমর্থন দিয়েছে। আশা করি; বিএনপিও আমাদের সমর্থন দিয়ে তাদের প্রার্থীকে নির্বাচন থেকে প্রত্যাহার করে নেবে।

পরে তিনি ১৩ দফা নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেন। ১৩ দফা নির্বাচনী ইশতেহারে রয়েছে- সিলেট নগরীতে স্মার্ট সিটি হিসেবে গড়ে তোলা, ফুটপাত দখলমুক্তকরণ ও সম্প্রসারণ, হকারদের জন্য হলিডে মার্কেট চালু করা, জলাবদ্ধতামুক্ত মহানগরী, বিশুদ্ধ পানির অভাব দূরীকরণ, পরিচ্ছন্ন মহানগরী ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, কমিউনিটি ক্লিনিক ও স্বাস্থসেবা, নিম্ন আয়ের জনগোষ্ঠীর উন্নয়ন, জবাবদিহিতামূলক প্রশাসন, আলোকিত সিলেট সিটি, সবুজ সিলেট সিটি, মুক্তিযোদ্ধাদের মর্যাদা, পর্যটনবান্ধব মহানগর ও দৃষ্টিনন্দন সিলেট, মাদকমুক্ত মহানগরী গঠন ও নিরাপত্তা, দুযোর্গ ব্যবস্থাপনা, প্রবাসী সেবা, নারীর মর্যাদা প্রতিষ্ঠা ও উন্নয়ন এবং চিড়িয়াখানা নির্মাণ ইত্যাদি।

জুবায়ের বলেন, টিলাগড়ে, হাউজিংস্টেট, দর্শনদৌড়ি, সুবিদবাজারসহ বিভিন্ন জায়গায় আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা হয়েছে। বাধার মুখে আমাকে পথসভা করতে হয়েছে। এভাবে কিছু লক্ষণ দেখা যাচ্ছে যা আমাদের উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় ফেলে দিচ্ছে। সম্প্রতি পুলিশ যে মামলা দায়ের করেছে সেখানে আমাদের অনেক নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে। সব মিলে আসলেই আমরা সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করছি।

জুবায়ের আরো বলেন, আমাদের পক্ষ থেকে নির্বাচন কমিশনকে একাধিকবার লিখিতভাবে বিষয়টি জানানো হয়েছে। আমি নিজেও কথা বলেছি। আমরা আশা করেছি সিলেটে একটি ফেয়ার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

সুষ্ঠু নির্বাচন উপহার দেবার বিষয়ে সরকারি দলের আন্তরিকতা বেশি প্রয়োজন উল্লেখ করে জুবায়ের বলেন, এটি সিলেট, এখানে অন্যান্য এখানকার তুলনায় রাজনৈতিক অঙ্গনে সৌহার্দ্য-সম্প্রীতির সম্পর্ক রয়েছে। কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা যাতে না ঘটে সেদিকে নির্বাচন কমিশন এবং প্রশাসনকে কড়া নজর রাখার আহ্বান জানান এহসানুল মাহবুব জুবায়ের।

ইশতেহার ঘোষণা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- জামায়াতের কেন্দ্রীয় নেতা সাবেক এমপি অধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিন, জামায়াতের কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা হাবিবুর রহমানসহ জামায়াতের বিভিন্ন পর্যায়ের কয়েক শতাধিক নেতাকর্মী।



মন্তব্য চালু নেই