সীমান্ত হত্যা ভারতীয় আগ্রাসী চরিত্রের বহি:প্রকাশ : খন্দকার লুৎফর রহমান

২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতা ও জাগপা সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার লুৎফর রহমান বলেন, সীমান্ত হত্যা ভারতের আগ্রাসী চরিত্রের নগ্ন বহি:প্রকাশ। প্রতিবেশী ভারতের অব্যাহত আগ্রাসনের কারণে বাংলাদেশ একটা ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিনতির দিকে ধাবিত হচ্ছে। সীমান্তে ফেলানীর লাশ ঝুলিয়ে রাখা মানে হলো বাংলাদেশকে ঝুলিয়ে রাখা।

বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ৭ জানুয়ারী শহীদ ফেলানী দিবস স্মরণে জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি-জাগপা ঢাকামহানগর আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসকল কথা বলেন।

তিনি শহীদ ফেলানী দিবসে ভারতীয় আগ্রাসনের বিরুদ্ধে জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়ে বলেন, কুড়িগ্রামে ফুলবাড়ী সীমান্তে বিনা উস্কানীতে বিএসএফ কর্তৃক বাবার সামনে কন্যাকে শিশু ফেলানীকে হত্যা-সহ সারা বছর সীমান্তে ভারতীয় বিএসএফ‘র নিরীহ বাংলাদেশীদের হত্যা ভারতের আগ্রাসী চরিত্র ও সরকারের নতজানু পররাষ্ট্রনীতির পরিচয় বহন করে।

তিনি বলেন, ভারতীয় তাবেদার সরকারের ভারত তোষননীতির কারনেই সীমান্ত হত্যা ও নির্যাতন বন্ধ হচ্ছে না। বাংলাদেশকে অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিনত করার ষড়যন্ত্রের অংশ হিসাবেই ভারত সীমান্ত হত্যা ও নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে। কাঁটাতারে ঝুলন্ত ফেলানীর লাশ ভারতীয় আগ্রাসনের বিরুদ্ধে আজ প্রতিবাদের প্রতীক। এই ছবি শুধু ফেলানীর লাশের ছবি নয়, এই ছবি কাঁটাতারে বিদ্ধ বাংলাদেশের সার্বভৌমত্ব।

জাগপা ঢাকা মহানগর সভাপতি মো. হোসেন মোবারকের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক আলাউদ্দিন আল আজাদের সঞ্চালানায় বক্তব্য রাখেন জাগপা সাধারন সম্পাদক এস এম শাহাদাত, সহ-সভাপতি অধ্যাপক শামসুজ্জোহা, যুগ্ম সম্পাদক মো. সাইফুল আলম, মনছুর আহমেদ প্রমুখ।



মন্তব্য চালু নেই