মেইন ম্যেনু

স্ত্রীর পরকীয়া, স্বামী-প্রেমিক দুজনেরই কান শেষ!

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় কান কাটার প্রতিশোধ হিসেবে কান কেটে নিয়েছে প্রতিপক্ষ। স্ত্রীর পরকীয়ার ঘটনা নিয়ে পূর্বে প্রেমিকের কান কাটার জের ধরে সোহাগ সরদার নামে এই যুবকের কান কাটা হয়েছে। অভিযুক্ত রাজীব শেখ টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শুকুর আলীর ছেলে।

সোমবার বিকালে টুঙ্গিপাড়া উপজেলার পাটগাতী বাসস্ট্যান্ডের দোলা পরিবহন কাউন্টারের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

কান হারানো যুবক সোহাগ সরদার-এর মা মোসা. কহিনুর বেগম বাদী হয়ে এ ব্যাপারে মঙ্গলবার মামলা দায়ের করেছেন।

গত সোমবার বিকেলে ঘটনার পর আহত সোহাগ সরদারকে (২৫) প্রথমে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। পরে মারাত্মক আহত অবস্থায় ঢাকায় পাঠানো হয়। সোহাগ টুঙ্গিপাড়া উপজেলার শ্রীরামকান্দি গ্রামের শওকত সরদারের ছেলে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, রাজীব শেখ নামের ওই যুবকের সঙ্গে সোহাগের স্ত্রীর পরকীয়া সম্পর্ক ছিল। সোহাগ তাদের প্রেমের ব্যাপারে জানতে পেরে বেশ কয়েক মাস আগে রাজীবের কান কেটে দেয়। সোমবার বিকেলে রাজীব এরই প্রতিশোধ নিতে সোহাগের কান কেটে দেয়।

আহত সোহাগ সরদার ঢাকা যাওয়ার আগে সাংবাদিকদের বলেন, আমি ঢাকা যাওয়ার জন্য বিকালে টুঙ্গিপাড়ার পাটগাতীতে দোলা পরিবহনের কাউন্টারে আসি। ওই সময় টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শুকুর আলী শেখের ছেলে রাজীব শেখের নেতৃত্বে ৮/১০ জন যুবক আমাকে ঘিরে ধরে হামলা করে।

তারা আমাকে মারপিট করে ক্ষান্ত হয়নি। ধারালো অস্ত্র দিয়ে বাম কান সম্পূর্ণ কেটে নিয়ে যায়। আমার কানটি পলিথিনে ভরে উল্লাস করতে করতে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। পরে আমাকে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এনে চিকিৎসা দেয়।

টুঙ্গিপাড়া থানার ওসি এ কে এম এনামুল কবীর ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ইতিপূর্বে সোহাগের স্ত্রীর সঙ্গে রাজীবের পরকীয়া সম্পর্ক নিয়ে মারামারি ও কান কাটার ঘটনা ঘটেছিল। আর রাজীব গতকাল সোমবার সোহাগের কান কেটে প্রতিশোধ নিয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা হয়েছে। আসামিরা পলাতক, তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।



মন্তব্য চালু নেই